নামাজে আত্তাহিয়াতু পড়ার কারণ ও এর ইতিহাস

শুক্রবার, জুন ১৯, ২০২০

ধর্ম ডেস্ক: ইসলামের পাঁচটি ফরজ স্তম্বের মধ্যে নামজ একটি। কেয়ামতের দিন সর্বপ্রথম বান্দার কাছে নামাজের হিসাব নেওয়া হবে। যে ব্যক্তি নামাজের হিসাব দিতে সক্ষম হবে সেই সফলকাম। আল্লাহ তাআলা মুমিনের জন্য প্রতিদিন ৫ ওয়াক্ত নামাজ পড়াকে ফরজ করেছেন। নামাজে বৈঠক বসা ফরজ কাজ। আর বৈঠকে তাশাহহুদ পড়া ওয়াজিব বা আবশ্যক। প্রতি দুই দুই রাকাআত পর পর বৈঠকে বসতে হয়।

নামাজে বৈঠকে বসে তাশাহহুদ পড়তে হয়: التَّحِيَّاتُ لِلَّهِ وَالصَّلَوَاتُ وَالطَّيِّبَاتُ ، السَّلَامُ عَلَيْكَ أَيُّهَا النَّبِيُّ وَرَحْمَةُ اللَّهِ وَبَرَكَاتُهُ ، السَّلَامُ عَلَيْنَا وَعَلَى عِبَادِ اللَّهِ الصَّالِحِينَ أَشْهَدُ أَنْ لَا إِلَهَ إِلَّا اللَّهُ وَأَشْهَدُ أَنَّ مُحَمَّدًا عَبْدُهُ وَرَسُولُهُ

আত্তাহিয়াতু আসলেই অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি দোয়া। এই দোয়াটার পিছনের গল্পটা জানার পর প্রত্যেকের হৃদয়টা কোমল হবে নিশ্চিয় । তাহলে জেনে নেই এই দোয়ার ইতিহাস।

আত্তাহিয়াতু আসলে, আল্লাহর সাথে আমাদের রাসূলুল্লাহ (স) কথোপকথন একটা অংশ। যা আমাদের হুজুর করীম (স.) মিরাজ গিয়ে মহান আল্লাহর সাথে! রাসূলুল্লাহ (স.) যখন আল্লাহর সাথে কথোপকথন শুরু করে তখন আল্লাহকে আসসালামু আলাইকুম বলেননি!

তাহলে কি বলেছিল,,,??

কারণ, আমরা মহান আল্লাহকে বলতে পারব না, আল্লাহ আপনার উপর শান্তি নাজিল হউক! কারণ, আল্লাহ নিজেই একমাত্র পৃথিবীর সকল শান্তির এবং রহমতের উৎপত্তিস্থল!

রাসূলুল্লাহ (স.) আল্লাহকে উদেশ্য করে বলেছিলেনঃ

আত্তাহিইয়া-তু লিল্লা-হি ওয়াছ ছালাওয়া – তু ওয়াত্ ত্বাইয়িবা -তু
অর্থঃ যাবতীয় সম্মান, যাবতীয় উপাসনা ও যাবতীয় পবিত্র বিষয় আল্লাহর জন্য।

উওরে মহান আল্লাহ বলেনঃ

আসসালা-মু’আলায়কা আইয়ুহান্নাবিয়ু ওয়া রহমাতুল্লা-হি ওয়া-বারাকাতুহু।
অর্থঃ হে নবী, আপনার উপরে শান্তি বর্ষিত হউক এবং আল্লাহর অনুগ্রহ ও সমৃদ্ধি সমূহ নাযিল হউক।

এতে রাসূলুল্লাহ (স.) বলেনঃ

আসসালা-মু-আলায়না ওয়া আলা ইবাদিল্লা-হিছছালেহীন।
অর্থঃ আল্লাহর সমৃদ্ধি শান্তি বর্ষিত হউক আমাদের উপরে ও আল্লাহর সৎকর্মশীল বান্দাগণের উপরে।

মহান আল্লাহ এবং রাসূলে করীম (স.) এই কথোপকথন শুনে ফেরেস্তারা বলেনঃ

আশহাদু আল লা-ইলাহা ইলল্লালাহু ওয়া আশহাদুআন্না মুহাম্মাদান আব্দুহু ওয়া রাসূলুহু।
অর্থঃ আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি যে, আল্লাহ ব্যতীত কোন উপাস্য নেই এবং আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি যে, মুহাম্মদ (স.) তার বান্দা ও রাসূল।