জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১ লাখ ৩৫ হাজার ৮৯৮

রবিবার, মে ৩১, ২০২০

ঢাকা: গত বছরের তুলনায় এবারের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় পাসের হার ও জিপিএ ৫ দুটোই বেড়েছে। সব মিলিয়ে এবার জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১ লাখ ৩৫ হাজার ৮৯৮ জন শিক্ষার্থী।

বেড়েছে পাশের হারও। স্কুল, মাদ্রাসা ও কারিগরি মিলিয়ে সার্বিক পাশের হার ৮২.৮৭ শতাংশ।

এর মধ্যে এসএসসিতে ৮৩ দশমিক ৭৫ শতাংশ, মাদ্রাসায় ৮২ দশমিক ৫১ শতাংশ এবং কারিগরিতে ৭২ দশমিক ৭ শতাংশ পাস করেছে।

গত বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পাস করেছিল ৮২ দশমিক ২০ শতাংশ শিক্ষার্থী। এর মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছিল ১ লাখ ৫ হাজার ৫৯৪ জন।

জিপিএ-৫ পাওয়ায় শীর্ষে ঢাকা বোর্ড। আর পাশের হারে শীর্ষে থাকা রাজশাহী বোর্ড জিপিএ-৫ এর তালিকায় দ্বিতীয়স্থানে।

আজ রবিবার সকাল ১০টার দিকে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পরীক্ষার ফল ঘোষণা করেন। ঘণ্টা দেড়েক পর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তন থেকে ফেইসবুক লাইভে মাধ্যমিকের ফলাফলের বিস্তারিত তুলে ধরেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

ঢাকা বোর্ডে এবার পাসের হার ৮২.৩৪ শতাংশ, জিপিএ-৫: ৩৬ হাজার ৪৭ জন। রাজশাহী বোর্ডে পাসের হার ৯০.৩৭ শতাংশ, জিপিএ-৫: ২৬ হাজার ১৬৭ জন।

যশোর বোর্ডে পাসের হার ৮৭.৩১, জিপিএ-৫: ১৩ হাজার ৭৬৪ জন; কুমিল্লা বোর্ডে পাসের হার ৮৫.২২ শতাংশ, জিপিএ-৫: ১০ হাজার ২৪৫ জন, বরিশাল বোর্ডে পাসের হার ৭৯.৭০ শতাংশ, জিপিএ-৫: ৪ হাজার ৪৮৩ জন; দিনাজপুর বোর্ডে পাসের হার ৮২.৭৩ শতাংশ, জিপিএ-৫: ১২ হাজার, ৮৬ জন।

এছাড়া ময়মনসিংহ বোর্ডে ৮০.১৩ শতাংশ, জিপিএ-৫: ৭ হাজার ৪৩৪ জন; চট্টগ্রাম বোর্ডে ৮৪.৭৫ শতাংশ, জিপিএ-৫: ৯ হাজার ৮ জন; সিলেট বোর্ডে পাসের হার ৭৮.৭৯ শতাংশ, জিপিএ-৫: ৪ হাজার ২৬৩ জন।

এবার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন শিক্ষার্থী অংশ নেন। গত কয়েক বছর ধরে পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৬০ দিনের মধ্যে এসএসসি পরীক্ষার ফল ঘোষণা করা হলেও এবার করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে তা সম্ভব হয়নি।

ফল হস্তান্তরের সময় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন ধাপে ধাপে খোলা হবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।