৬ নয়, করোনা ছড়ায় ‘২০ ফুট দূর’ পর্যন্ত

বৃহস্পতিবার, মে ২৮, ২০২০

করোনা ভাইরাসের রাজত্ব চলছে বিশ্বজুড়ে। করেনার গতিবিধি এখনো স্থির করা সম্ভব হয়নি। এখনো বিশ্বে হাজার হাজার মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে। মানুষ করোনার ছোবল থেকে বাঁচতে ঘরবন্দী। অনেক দিন বাসা-বাড়িতে থেকেও মানুষের অসুস্তি বোধ করছে। বেড় হচ্ছে মানুষ পারা-মহল্লায় ভীড় করছে। এদিকে বিজ্ঞানীদের গবেষণায় বেড়িয়ে আসছে আরেক তথ্য- হাঁচি-কাশি এবং শ্বাস প্রশ্বাসের মাধ্যমে বিভিন্ন বায়ুমণ্ডলীয় পরিস্থিতিতে ভাইরাস কতটা ছড়াতে পারে বা কতটা দূরে যেতে পারে তা নিয়ে গবেষণা করেছেন বিজ্ঞানীরা। গবেষণায় দেখা গেছে, মহামারি করোনা ভাইরাস ঠাণ্ডা এবং আর্দ্র আবহাওয়ায় স্বাভাবিকের চেয়েও তিনগুণ বেশি ছড়িয়ে যেতে পারে।

ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া এবং সান্তা বারবারা ইউনির্ভাসিটির এক গবেষণায় যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানীরা দেখেছেন, হাঁচি-কাশির ড্রপলেটের মাধ্যমে ভাইরাস ২০ ফুট দূর পর্যন্ত যেতে পারে। করোনা থেকে বাঁচতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে ছয় ফুটের কথা বলা হলেও বাস্তবে এটি যথেষ্ট নয়।

পূর্ববর্তী গবেষণার উপর ভিত্তি করে তারা জানিয়েছেন, হাঁচি-কাশি বা সাধারণ কথা বলার দ্বারা প্রায় ৪০ হাজার ড্রপলেট তৈরি হতে পারে। যা সেকেন্ডে কয়েক মিটার থেকে শত মিটার ছড়িয়ে যেতে পারে।

মহাকর্ষের কারণে সাধারণত বৃহৎ ড্রপলেটগুলো সীমিত দূরত্বে একটি পৃষ্ঠের ওপর স্থিত হয়, ছোট ছোট ড্রপলেটগুলো এয়ারোসোল কণা তৈরি করতে দ্রুত বাষ্পীভূত হয়, যা ভাইরাস বহন করতে এবং ঘণ্টাব্যাপীর জন্য বাতাসে ভাসতে সক্ষম।

ঠাণ্ডা ও আর্দ্র আবহাওয়ায় করোনা ভাইরাস ১৯.৭ ফুট পর্যন্ত যেতে পারে। তাই করোনা থেকে বাঁচতে যুক্তরাষ্ট্রের রোগ প্রতিরোধ কেন্দ্র সিডিসি যে সামাজিক দূরত্ব ছয় ফুট নির্ধারণ করেছে এটি যথেষ্ট নয়।