খেতে না পেয়ে রেলস্টেশনে মৃত্যু শ্রমিক মায়ের, জাগানোর চেষ্টা শিশুর

বৃহস্পতিবার, মে ২৮, ২০২০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ক্ষুধার জ্বালায় রেলস্টেশনে মারা যান এক নারী শ্রমিক আর তার শিশু তাকে বারবার জাগানোর চেষ্টা করছে। এমন মর্মান্তিক দৃশ্য দেখা গেছে ভারতের বিহারের মুজাফফরনগর স্টেশানে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এই ঘটনার একটি ছবি ভাইরাল হয়। ২ বছরের সন্তান চাদরে ঢাকা মায়ের মৃতদেহের সঙ্গে খেলছে, টানছে, ক্ষুধায় কখনও ঠেলে ডাকার চেষ্টা করছে।

মায়ের মৃতদেহ। সেই চাদর ধরে কখনও সেই দেহকে টেনে নিয়ে যাচ্ছে অন্যদিকে, কখনও আবার চাদরের ভিতর ঢুকে পড়ে মরা মা-কে জাগানোর জন্য ঠেলছে। মর্মান্তিক এমন দৃশ্য দেখে যে কেউই চমকে উঠবেন। কিন্তু করোনা ভাইরাসের মহামারীর দাপটে দেশজুড়ে লকডাউন এবং তার ফলে পরিযায়ী শ্রমিকেরা যে দুর্দশার মধ্যে পড়েছেন এটি তারই সবচেয়ে ভয়াবহ পরিণতি।

পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, ওই নারী একজন পরিযায়ী শ্রমিক। অসম্ভব গরম, ক্ষুধা এবং পানি না পেয়ে ডিহাইড্রেশনে তিনি মারা গেছেন।

মৃত নারীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, রবিবার গুজরাট থেকে পরিযায়ী শ্রমিকদের বিশেষ ট্রেনে উঠেছিলেন এই নারী। সোমবার ট্রেনটি মুজাফফরনগর পর্যন্ত এসে পৌঁছেছিলেন তিনি ও তার এই সন্তান।

জানা যায়, ওই স্টেশনে রবিবার এক শিশুও মারা যায় একই কারণে। ক্ষুধা ও তৃষ্ণায় এমন পরিণতি। শিশুটির পরিবারের অন্যরা অন্য ট্রেনে সেখানে আসার কথা ছিল।

মার্চের শেষ থেকে লকডাউন শুরু হওয়ার পরই ভয়ানক পরিস্থিতির শিকার ভারতের পরিযায়ী শ্রমিকরা। কাজ, টাকার অভাবে পায়ে হেঁটেই কর্মস্থল থেকে বাড়ি ফেরার চেষ্টা করেছেন তারা। হাজার হাজার কিলোমিটার হেঁটে অসুস্থ হয়ে বা রাস্তায় দুর্ঘটনার শিকার হয়ে প্রাণ গিয়েছে অনেক শ্রমিকের।