ঈদের দিন গণধর্ষণের শিকার কলেজছাত্রী, পালিয়ে বাঁচল অপরজন

মঙ্গলবার, মে ২৬, ২০২০

পাবনা : পাবনার চাটমোহরে ঈদের দিন সন্ধ্যায় গণধর্ষণের শিকার হয়েছে এক কলেজছাত্রী (১৬)। সোমবার (২৫ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলার গুনাইগাছা ইউনিয়নের চরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ওই কলেজছাত্রীর সঙ্গে থাকা এক কিশোরী ধর্ষকদের হাত থেকে কোনোমতে পালিয়ে বাঁচে। পরে এলাকাবাসী ৩ ধর্ষককে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের সোপর্দ করে। এক ধর্ষক পালিয়ে যায়।

আটকরা হলেন- চরপাড়া গ্রামের মকবুল হোসেনের ছেলে রেজাউল করিম রেজা (৩৮), জয়লাল হোসেনের ছেলে শুকুর আলী (৪০) ও শাহজাহান আলীর ছেলে ইসরাইল হোসেন (৪২)। জামাল হোসেনের ছেলে ফারুক হোসেন (৪০) পালিয়ে গেছে।

পুলিশ ও ধর্ষিতার পরিবারের লোকজন জানান, ঈদের দিন সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী (১৬) ও অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী (১৩) চরপাড়া নিজ বাড়ির কিছু দুরে কবিরাজের কাছে ঝাঁড়ফুক নেওয়ার জন্য যায়। কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে রেজা, শুকুর, ইসরাইল ও ফারুক পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে ছিল। পথের পাশেই একটি পাট ক্ষেতে ওই দুই ছাত্রীকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যায়। এ সময় কলেজছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়। আর ধর্ষণের চেষ্টাকালে স্কুলছাত্রী ধর্ষকদের চিনে ফেললে তাদের সাথে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে তাদের হাত থেকে পালিয়ে বাড়ি চলে যায়। বাড়ি গিয়ে ঘটনা খুলে বললে এলাকার লোকজন দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুঁটে এসে ধর্ষকদের হাতেনাতে আটক করলেও ফারুক ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।

চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নাসির উদ্দিন জানান, স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে ওই গ্রাম থেকে তিনজনকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় কলেজ ছাত্রীর বাবা ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় আটককৃত আসামিদের গ্রেফতার দেখিয়ে সোমবার জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

ওসি নাসির উদ্দিন বলেন, কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ করা হয়েছে। আর স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়েছে ধর্ষকেরা। কলেজছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।