যুক্তরাষ্ট্রের পথে পথে বিলবোর্ডে মহানবী (সা.) এর উপদেশ বাণী, তাকিয়ে বিশ্ব

সোমবার, এপ্রিল ২৭, ২০২০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : করোনা ভাইরাসের চতুর্মুখী আঘাতে লণ্ডভণ্ড গোটা বিশ্ব। গেল ডিসেম্বরে চীনের উহানে করোনার অস্তিত্ব পাওয়ার পর গত কয়েক মাসে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত ও মৃত্যুর তালিকায় সবার উপরে আছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নাম। বিশ্বের অন্যতম শক্তিশাল এই দেশটিতে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৯ লাখ ৮৭ হাজার ৩২২ জন। এরমধ্যে মারা গেছে ৫৫ হাজার ৪১৫ জন। প্রতিদিনই দেশটিতে হাজার হাজার মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে। মৃত্যুর মিছিলও হচ্ছে দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর।

এবার যুক্তরাষ্ট্র নিজ দেশের মানুষদের করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন করতে মহাসড়কের বিলবোর্ডগুলোতে ইসলাম ধর্মের শেষ নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর বাণী প্রচার করছে। বিলবোর্ড স্থাপনকারী সংগঠন ইলিয়নস অঙ্গরাজ্যের গেইনপিস।

ইতোমধ্যে মার্কিন দুনিয়াসহ গোটা বিশ্বের নজর কেড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের পথে পথে মহানবীর বাণী সম্বলিত এসব বিলবোর্ড।

দেখা যাচ্ছে, একটি বিলবোর্ডে পবিত্র মক্কা শরীফের ছবি টাঙিয়ে বলা হয়েছে, একমাত্র মহান আল্লাহর ইবাদতের জন্য এই মক্কা শরীফ তৈরি করেছেন হযরত ইব্রাহিম (আ:)। প্রতি বছর লাখ লাখ মানুষ একমাত্র আল্লাহর উপাসনা করতে সেখানে সমবেত হন।

যুক্তরাষ্ট্রের মহাসড়কে টাঙিয়ে রাখা অপর একটি বিলবোর্ডে দেখা যাচ্ছে, ইসলাম ধর্মের শেষ নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর বাণী লেখা রয়েছে। সেখানে লেখা হয়েছে- মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) উপদেশ দিয়েছেন, ‘সংক্রামক রোগের সময় তোমরা বারবার হাত ধোও, সংক্রামিত এলাকায় প্রবেশ করো না এবং সংক্রামিত এলাকা থেকে বাইরে যেও না।’

বিখ্যাত শিকাগো শহরের ওহার বিমানবন্দর সংলগ্ন টাঙানো অন্য একটি বিলবোর্ডে হযরত ঈসা (আ.) এর মা মরিয়ম (মেরি) এর সম্মানার্থে মেয়েদের মাথায় হিজাব পরার ব্যাপারে সচেতনতার কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

এসব বিলবোর্ড স্থাপনকারী সংগঠন গেইনপিস যুক্তরাষ্ট্রের ইলিয়নভিত্তিক একটি অলাভজনক ইসলামী সংস্থা। সংগঠনটির যাত্রা শুরু হয়েছিল ২০০৮ সালে।

মার্কিন জনগণের মধ্যে সঠিক ইসলামী জ্ঞান বিতরণের পাশাপাশি ক্রমবর্ধমান ইসলাম ফোবিয়া বা ইসলাম ভীতি দূর করাই গেইনপিসের প্রাথমিক উদ্দেশ্য। সংগঠনটি বরাবরই মানুষকে সঠিক ইসলামী মূল্যবোধ সম্পর্কে জানাতে কাজ করে।

গেইনপিসের পরিচালক ডাক্তার সাবিল আহমেদ গণমাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে বলেছেন, ‘ইসলাম একটি সুন্দর ও বাস্তবসম্মত জীবনব্যবস্থা। তবে বর্তমানে কিছু বিপথগামী লোকের দ্বারা ইসলামের ভুল বাণী ছড়িয়ে পড়েছে। আমাদের কাজ গণমাধ্যমের নানা উপকরণ ব্যবহার করে মানুষের মাঝে সঠিক ইসলামের বাণী পৌঁছে দেয়া।’