বরিশালে ল্যাবে করোনার টেষ্ট শুরু, বিভাগে ৩ হাজার ২০ ব্যক্তির হোম কোয়ারেন্টিন শেষ

বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ৯, ২০২০

বরিশাল : বরিশাল বিভাগের ৬ জেলায় হোম কোয়ারেন্টিনে থাকাদের মধ্যে ৩ হাজার ২০ জন ব্যক্তি ছাড়পত্র পেয়েছে। বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয় সূত্রে জানাগেছে, গত ১০ মার্চ থেকে এ পর্যন্ত বরিশাল সিটি করপোরেশনসহ বিভাগের ৬ জেলায় মোট ৩ হাজার ২৮১ জনকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়। যারমধ্য থেকে এ পর্যন্ত মোট ৩ হাজার ২০ জনকে হোম কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে।

অপরদিকে গত ২৪ ঘন্টায় বিভাগের মধ্যে শুধু ভোলা, পটুয়াখালী ও ঝালকাঠি জেলায় ৬২ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে প্রেরণ করা হয়েছে এবং গত ২৪ ঘন্টায় ৬ জেলার মধ্যে শুধুমাত্র বরিশাল, ভোলা ও পিরোজপুরের জেলাতে ১৮৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে।

তবে বরিশাল নগর, পিরোজপুর ও বরগুনা জেলায় নতুন করে যেমন কেউ যেমন হোম কোয়ারেন্টিনে যায়নি, তেমনি বরিশাল, ভোলা ও পিরোজপুর জেলায় কাউকে ছাড়পত্রও দেয়া হয়নি। এরবাহিরে বিভাগে ২৮ জন রোগী আইসোলেশনে চিকিৎসা নেয়ার জন্য শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ সরকারি হাসপাতালের দ্বারস্থ হন, যারমধ্যে ১৬ জনকে এরইমধ্যে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে।

অপরদিকে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে মৃত ২ জন রোগীর মধ্যে ১ জনের পরীক্ষার রিপোর্ট ন্যাগিটিভ এসেছে। অপরজনের রিপোর্ট এখনো হাতে পায়নি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে করোনা ভাইরাস পরীক্ষার পিসিআর ল্যাবের কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

৮ এপ্রিল উদ্বোধনের পর নমুনা পরীক্ষা করেন এখানের কর্মরত চিকিৎসক, টেকনিশিয়ানরা। আজ বৃহস্পতিবার (০৯ এপ্রিল) থেকে শুরু হয় পরীক্ষার কার্যক্রম। শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. বাকির হোসেন বলেন, তারা শুরুর দিনই করোনা ইউনিটে ভর্তি দু’জন রোগির নমুনা বরিশাল মেডিকেল কলেজে স্থাপিত পিসিআর ল্যাবে পাঠিয়েছিলেন।

আজও রোগির নমুনা পাঠাবেন। এখানে ল্যাব হওয়াতে পরীক্ষার ফলাফল পেতে সহায়ক হবে তাদের। শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. অসীত ভূষণ দাস বলেন, তারা আজ পরীক্ষা করছেন। পরীক্ষার ফলাফল, প্রথমে ঢাকায় এরপর যেসব স্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে রোগির নমুনা পাঠিয়েছে তাদের জানিয়ে দিবেন।