স্বেচ্ছায় ‘লকডাউন’ এ ভোলার যে গ্রাম

মঙ্গলবার, এপ্রিল ৭, ২০২০

ঢাকা : সারাবিশ্বে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারী আকার ধারণ করছে। দিন দিন দেশে করোনা আক্রান্তদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিন্তু এ ভাইরাসের নির্দিষ্ট কোনো প্রতিষেধক না থাকায় সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত এবং সচেতনতা ছাড়া কোনো উপায় নেই।

সরকারের একার পক্ষে এই করোনা নিয়ন্ত্রণ সম্ভব নয় যদি না দেশের মানুষ সচেতন হন। সরকার থেকে শুরু করে আইনশৃঙ্খলাবাহিনী মানুষকে প্রতিদিনই সচেতন করার চেষ্টা করছে। তাদের এই সচেতনতা কেউ মানছেন, কেউ আবার মানছেন না। তবে সচেতনতার অন্যতম দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে ভোলা সদর উপজেলার ধনিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড এলাকার যুব সমাজ।

ঐ এলাকার মানুষ করোনা প্রতিরোধে ব্যাপকভাবে কাজ শুরু করেছেন। সামাজিক দূরত্বনিশ্চিত এবং বহিরাগতদের প্রবেশ বন্ধে এলাকাবাসীরা নিজ উদ্যোগেই এলাকার প্রবেশ পথ বন্ধ করে স্বেচ্ছায় ‘লকডাউন’ ঘোষণা করেছেন। এমন খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল। অনেকেই খবরটি নিজেদের ফেইসবুক পেইজে পোস্ট করেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ধনিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের তুলাতুলি বাজার এর পশ্চিম পাশে খন্দকার বাড়ি জামে মসজিদ থেকে সেলিম হাওলাদার বাড়ি পর্যন্ত প্রায় ৭০ টি ঘরসহ ১ কি.মি. রাস্তা লক ডাউন করে দিয়েছে এলাকাবাসীরা। স্থানীয় বাসিন্দারা স্বেচ্ছায় লকডাউনে যাবার ঘোষণা দিয়ে বাঁশ দিয়ে ব্যারিকেড তৈরি করেছেন। বহিরাগতদের প্রবেশ নিষিদ্ধ উল্লেখ করে ঝোলানো হয়েছে সতর্কতা বার্তা।

বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া নতুন কেউ গ্রামে প্রবেশ করতে পারবে না বলে জানানো হয়েছে। গ্রামের বাইরে থেকে ভেতরে প্রবেশের সময় বাধ্যতামূলক হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা জীবাণুনাশক স্প্রে করা হচ্ছে।

উদ্যোক্তা ফজলে রাব্বী খন্দকার ও নূরে-আলম খন্দকার বলেন,আসলেই আমরা সকলে সচেতন না হলে এই মহামারী প্রতিরোধ করা সম্ভব না। তাই সরকারের পাশাপাশি আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসা উচিত। আমরা সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে এ কাজটি করেছি।আশা করি অন্যান্যরাও নিজেদের উদ্যোগে এমন কাজ করবেন।