মার্কিন বিমানবাহী রণতরী খালি না করলে মারা যাবে সব সেনা!

সোমবার, এপ্রিল ৬, ২০২০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: গোটা বিশ্ব করোনা ভাইরাসের ভয়াল গ্রাসে কাবু। চীন থেকে ভয়ঙ্কর এই মারণ ভাইরাসের সূত্রপাত ঘটলেও এখন একের পর এক দেশে মহামারীর রূপ নিয়েছে।

ইতালি, স্পেনের, ব্রিটেনের পর আমেরিকাতেও এখন কবরস্থানের নিস্তব্ধতা। শুধু একটানা মৃত্যু মিছিল। ভয়ঙ্কর এই ভাইরাস শুধু মার্কিন ভুখন্ডের মধ্যেই আটকে থাকেনি। মাঝ সমুদ্রে থাকা মার্কিন এয়ারক্র্যাফট কেরিয়ার থিওডোর রুজভেল্টের মধ্যেও ছড়িয়ে পড়েছে মারণ এই ভাইরাস।

এই মুহূর্তে মার্কিন এই বিমানবাহী রণতরীতে অন্তত পাঁচ হাজার নৌ সেনা রয়েছে। তারা সবাই আতঙ্কিত-ভীত। এয়ারক্রাফট কেরিয়ারে থাকা ক্যাপ্টেন ব্রেট ক্রোজিয়ার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, করোনাভাইরাসে মারাত্মকভাবে আক্রান্ত বিমানবাহী এই রণতরীকে শিগগিরই খালি না করা হলে আমেরিকা নাবিকেরা সবাই মারা যাবে।

মার্কিন এই বিমানবাহী রণতরী এই মুহূর্তে প্রশান্ত মহাসাগরে রয়েছে। থিওডোর রুজভেল্টে এক সপ্তাহ আগে বেশ কয়েকজনকে পরীক্ষার মাধ্যমে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বলে চিহ্নিত করা হয়। এই সম্পর্কে চার পৃষ্ঠার চিঠিতে ক্যাপ্টেন ব্রেট ক্রোজিয়ার জাহাজের পরিস্থিতি বিস্তারিত বর্ণনা করেছেন।

বিশ্বের অন্যতম আধুনিক এবং শক্তিশালী এয়ারক্র্যাফট থিওডোর রুজভেল্ট। পরমাণু শক্তিচালিত এয়ারক্র্যাফট এটি।

জানা গিয়েছে, সম্প্রতি এয়ারক্র্যাফটে থাকা আরও নৌবাহিনী সেনা জওয়ানকে করোনার পরীক্ষা করা হয়েছে। জাহাজে থাকা ক্যাপ্টেন বলেন, বিমানবাহী এই যুদ্ধজাহাজে পর্যাপ্ত পরিমাণে কোয়ারেন্টাইন এবং আইসোলেশনে রাখার সুবিধা নেই। বর্তমানে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে জাহাজে খুবই ধীরগতিতে প্রচেষ্টা চলছে। কিন্তু এভাবে এই ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব কখনই মোকাবেলা করা যাবে না বলে জানাচ্ছেন ক্যাপ্টেন ব্রেট ক্রোজিয়ার।

ক্যাপ্টেন ব্রেট ক্রোজিয়ার বিমানবাহী জাহাজের সেনাদের দ্রুত সরিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে মার্কিন নৌবাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, “স্বল্প সময়ের মধ্যে এই সমস্ত সেনাকে জাহাজ থেকে আইসোলেশনে নেওয়া দরকার। আমরা বর্তমানে যুদ্ধের ভেতরে নেই এবং সেনাদের মরারও প্রয়োজন নেই।”

তিনি বলেন, “এখনই যদি সঠিক সিদ্ধান্ত আমরা না নিতে পারি তাহলে আমাদের সবচেয়ে বিশ্বস্ত সম্পদ আমাদের সেনাদেরকে আমরা হারাবো।” তিনি আরো বলেছেন, জাহাজে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে।