এপ্রিলের শেষে ভয়াবহ রূপ নিতে পারে করোনা: ডাঃ দেবী শেঠি

সোমবার, এপ্রিল ৬, ২০২০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : এশিয়ায় করোনাভাইরাস সংক্রমণের গতি দিন দিন বেড়েই চলেছে। ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬০১ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। একদিনের হিসাবে দেশটিতে এটি সর্বোচ্চ সংক্রমিত সংখ্যা। সব মিলিয়ে গত রাতে প্রতিবেশী দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা তিন হাজার ছাড়িয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে সেখানকার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

এমতাবস্থায় আরও আশঙ্কার কথা শোনালেন নারায়না হেলথের প্রতিষ্ঠাতা দেবী প্রসাদ শেঠি। এপ্রিলের শেষে বা মে-র শুরুতে ভারতে করোনা সংকটে ভয়াবহ রীপ ধারণ করতে পারে বলে তার মত। তবে লকডাউনে মৃত্যুর হার কমতে পারে ৫০ শতাংশ এই ক্ষেত্রে ভারত আমেরিকার থেকে প্রায় একমাস পিছিয়ে আছে বলেও পরিসংখ্যান তুলে ধরে দেবী শেঠি জানান। ২১ দিনের লকডাউন ডাউন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, লকডাউন মৃত্যুর হারকে কমপক্ষে ৫০% কমিয়ে আনতে পারবে তখনই যদি যাবতীয় পরীক্ষার ব্যবস্থা, স্থানীয় লকডাউন মানা এবং সামাজিক দূরত্বের ক্ষেত্রে সতর্কতামূলক পদক্ষেপ গুলি গ্রহণ করি।

কারণ এখন বল জনগণের আদালতে রয়েছে, সরকারের নয়। যদিও এই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে ভারতে আরও বেশি পরিমাণে করোনা পরীক্ষা করা উচিত বলে মত প্রকাশ করছেন অনেক বিশেষজ্ঞই। পরীক্ষা ফলে হয়তো সবসময় চিকিৎসা প্রদানও সবক্ষেত্রে পর্যাপ্ত পরিমাণে সম্ভব হবে না। কিন্তু পজিটিভ রোগীকে পৃথকীকরণের ক্ষেত্রে অনেকটাই সহায়তা করবে।