যুক্তরাষ্ট্রে এক বছর চাকরি পাবে না ভারতীয়-চীনারা!

বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২, ২০২০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : করোনা ভাইরাসের কারণে কার্যত বিশ্বের সব দেশের অর্থনীতিই অবরুদ্ধ। খোদ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেই কর্মহীন হতে পারেন দেশটির ৭ কোটি মানুষ। এর মধ্যেই শোনা যাচ্ছে আগামী এক বছর যুক্তরাষ্ট্রে চাকরি পাবে না ভারতীয় ও চীনা নাগরিকরা। করোনার এই দুর্যোগের মধ্যে যা দেশ দু’টির জন্য মরার উপর খাড়ার ঘা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জিনিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতীয় ও চীনাদের এইচ-১বি ভিসা না দেয়ার আবেদন করা হয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে।

এ বছর এইচ-১বি ও এইচ-২বি ভিসা অনুমোদন না করার এই আবেদন জানিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রযুক্তি কর্মী সংগঠন। নিজেদের কর্মহীনতার পরিস্থিতি থেকে বাঁচাতে এই আবেদন করেছে সংগঠনটি।

এইচ-১বি ভিসা হলো এক ধরনের অ-অভিবাসী ভিসা। যার সাহায্যে মার্কিন সংস্থাগুলো বিদেশি কর্মীদের নিয়োগ করে তাদের দেশে। বেশিরভাগ ভারতীয় ও চিনা কর্মীদেরই সেদেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ ঘটে এই ভিসার মাধ্যমে। আর এইচ-২বি ভিসার মাধ্যমে লাতিন আমেরিকার কর্মীদের নিয়োগ করেন মার্কিন ব্যবসায়ীরা।

ইউএস টেক ওয়ার্কার্স নামের এই সংস্থার বক্তব্য, তাদের এই দাবি আসলে সেই সমস্ত মার্কিন কর্মীদের সাহায্য করবে, যারা এইচ-১বি ভিসার ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হন। পরিসংখ্যান বলছে করোনার দরুন এপ্রিলের শেষে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কর্মহীনের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াতে পারে ৭ কোটিতে।

সংস্থার লেখা চিঠিতে প্রেসিডেন্টের কাছে দাবি জানানো হয়েছে, এইচ-১বি ও এইচ-২বি ভিসা এ বছর বাতিল করে দিন যার সাহায্যে বাইরের দেশ থেকে ১ লাখ ২০ হাজার কর্মী এদেশে আসতে পারবে না। যার ফলে সুবিধা হবে মার্কিনিদের।

প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রে করোনা ভাইরাস ভয়াবহ রুপ নিচ্ছে। দেশটিতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ১০২ জন। এর মধ্যে শুধু নিউইয়র্কে মারা গেছে ২ হাজার ২১৯ জন।

আক্রান্তের সংখ্যায় দেশটি ইতালি, চীন ও স্পেনকেও ছাড়িয়ে গেছে। এই ভাইরাসে সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ১৫ হাজার ৮১ জন। এর মধ্যে ৮ হাজার ৮৭৮ জন সুস্থ হয়েছে বাড়ি ফিরেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৬ হাজার ৪৭৩ জন। যা একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্তের রেকর্ড।

এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে ২ লাখ ১ হাজার ২৩ জন আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের মধ্যে ১ লাখ ৯৬ হাজার ১৮ জনের অবস্থা সাধারণ। বাকি ৫ হাজার ৫ জনের অবস্থা গুরুতর, যাদের অধিকাংশই আইসিউতে রয়েছেন।

উল্লেখ্য, বিশ্বজুড়ে করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৪ হাজার ৮৯০ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা এ যাবৎ একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৭ হাজার ১৯২।

এই ভাইরাসে বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৬ হাজার ৮৭২ জন। এটিও একদিনে আক্রান্তের সংখ্যায় সর্বোচ্চ। এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯ লাখ ৩৫ হাজার ১৯৭ জন। এর মধ্যে ১ লাখ ৯৩ হাজার ৯৮৯ জন সুস্থ হয়েছে বাড়ি ফিরেছেন।

এছাড়া বিশ্বজুড়ে বর্তমানে ৬ লাখ ৯৪ হাজার ২৩৮ জন আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের মধ্যে ৬ লাখ ৫৮ হাজার ৭৬০ জনের অবস্থা সাধারণ। ৩৫ হাজার ৪৭৮ জনের অবস্থা গুরুতর, যাদের অধিকাংশই আইসিউতে রয়েছেন।