পাবনা-দিনাজপুরে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ যুবক নিহত

মঙ্গলবার, মার্চ ৩১, ২০২০

পাবনা: পাবনার সাঁথিয়ায় ও দিনাজপুরের বিরামপুরে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ যুবক নিহত হয়েছে।
সোমবার দিবাগত গভীর রাতে এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে।

পাবনা: পাবনার সাঁথিয়ায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।
সোমবার দিবাগত রাত ২টরি দিকে উপজেলার শামুকজানি বাজারে এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে।
নিহতের নাম সরোয়ার ওরফে সরো ওরফে শাহীন আলম ওরফে আশিক (৩৬)। তিনি উপজেলার পুন্ডুরিয়া গ্রামের হারুন অর রশিদ ওরফে হারু ব্যাপারীর ছেলে।
পুলিশের দাবি, নিহত ব্যক্তি আন্তঃজেলা ডাকাতদলের সর্দার ও হত্যা মামলার আসামি।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস জানান, সাঁথিয়া উপজেলার শামুকজানি বাজারে ডাকাতির উদ্দেশ্যে একদল ডাকাত গোপন বৈঠক করছে- এমন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে পাবনা ডিবি ও সাঁথিয়া থানা পুলিশ সেখানে যৌথ অভিযানে যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে শুরু করে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। কিছু সময় গুলিবর্ষণ চলার এক পর্যায়ে ডাকাতদল পিছু হটে পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ সরোয়ার ওরফে আশিককে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
গৌতম কুমার বিশ্বাস জানান, ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশি বন্দুক, একটি কার্তুজ, একটি চাকু ও এক জোড়া স্যান্ডেল উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় পুলিশের দু’জন সদস্য আহত হয়েছে। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
দিনাজপুর: দিনাজপুরের বিরামপুরে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক যুবক নিহত হয়েছেন।
সোমবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে বিরামপুর পৌর শহরের মিরপুর মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
বিরামপুর থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান জানান, ভারত থেকে ফেনসিডিল নিয়ে মাদক চোরাকারবারিদের একটি দল মিরপুর গ্রাম হয়ে বিরামপুরে আসার খবর পায় পুলিশ।
খবর পেয়ে ওসি মনিরুজ্জামানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল মিরপুর গ্রামে অভিযানে যায়। সেখানে পুলিশের মুখোমুখি হলে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। মাদক ব্যবসায়ীদের গুলিতে এএসআই শাহজাহান, এএসআই নিরঞ্জন এবং কনস্টেবল দেলোয়ার আহত হন।
পুলিশ আত্মরক্ষার্থে শর্টগানের ৮ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। কিছুক্ষণ পর মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে গেলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় অজ্ঞাত এক মাদক ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করে বিরমাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক অজ্ঞাত ব্যক্তিকে মৃত ঘোষণা করেন।
পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একশ বোতল ফেনসিডিল, একটি পাইপগান এবং তিন রাউন্ড গুলি, তিনটি গুলির খোসা, তিনটি চড় চাকু জব্দ করে।
ওসি মনিরুজ্জামান জানান, আহত পুলিশ সদস্যদের দিনাজপুর পুলিশ লাইন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করবে।