সেই নার্স করোনায় আক্রান্ত নয়

শনিবার, মার্চ ২৮, ২০২০

ঢাকা : করোনাভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সেই নার্স করোনায় আক্রান্ত নন। গত বৃহস্পতিবার রাতে তিনি নিজেই ফোন করে রাজশাহীর গণমাধ্যমকর্মীদের এ তথ্যটি জানিয়েছেন। আজিজা সুলতানা নামের ওই নার্স রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ১ নম্বর ওর্য়াডে কর্মরত ছিলেন। তিনি নাটোর শহরের হরিশপুর মহল্লার বাসিন্দা। করোনা সন্দেহে বুধবার রাতে তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার আগে তাকে জানানো হয়েছে তিনি করোনায় আক্রান্ত নন। তার রিপোর্ট নেগেটিভ। এর আগে মঙ্গলবার রাতে রাজশাহী থেকে বিশেষ ব্যবস্থায় তাকে ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসা শুরুর পর তার শারীরিক পরিস্থিতির উন্নতি হয়। তিনি জানান, বুধবার সন্ধ্যার পরপরই আইইডিসিআর থেকে করোনা রেসকিউ টিমের সদস্যরা কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে গিয়ে তার রক্ত ও মুখের লালার নমুনা নিয়ে যান।

গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পরপরই তাকে জানানো হয় তিনি করোনায় আক্রান্ত নন। এখন হাসপাতালের চিকিৎসকরা যেটা ভালো মনে করবেন তারা সেভাবেই পরামর্শ ও নির্দেশনা দেবেন। ওই নার্স জানান, গত বুধবার রাত থেকে তার জ¦রের প্রকোপ অনেকটাই কমে আসে। সর্দি-কাশিও কমে। তবে গত বৃহস্পতিবার সকাল থেকে কিছুসময় পেটে প্রচন্ড ব্যথা ছিল। ওষুধ দেয়ার সেটা কমে যায়। কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তার চিকিৎসার বিষয়ে খুবই আন্তরিক বলে জানিয়েছেন তিনি। গণমাধ্যমে তার শারীরিক অবস্থা ও চিকিৎসার পরিস্থিতি নিয়ে প্রতিবেদন হওয়ার পরপরই আইইডিসিআর, স্বাস্থ্য অধিদফতর ও মন্ত্রণালয়, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তার চিকিৎসার বিষয়ে দ্রুততার সঙ্গে সব পদক্ষেপ গ্রহণ করে। এ ছাড়া রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও নার্সেস অ্যাসোসিয়েশানের নেতৃবৃন্দ তার চিকিৎসার বিষয়ে সার্বক্ষণিক খোঁজখবর নিয়েছেন ও নিচ্ছেন বলে জানান তিনি।

গত ১৯ মার্চ ঢাকা থেকে বাসযোগে রাজশাহীতে ফেরার সময় ওই নার্সের সহযাত্রী ছিলেন একজন ইতালি প্রবাসী। পরদিনই তার সর্দি, কাশি ও জ্বর শুরু হয়। ওইদিনই তিনি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে যান। সেখান থেকে তাকে পাঠানো হয় মেডিসিন ওয়ার্ডে। করোনা সন্দেহে নার্সকে পাঠানো হয় রাজশাহীর বক্ষব্যাধী ও সংক্রমণ রোগ নিরাময় কেন্দ্র আইইডিতে। সেখান থেকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়। বাড়িতে গিয়ে জ্বরের তীব্রতা ও অন্যান্য উপসর্গ আরও বাড়লে ফের তিনি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান। সেখান থেকে তাকে আবারো আইইডির আইসোলেশনে নেয়া হয়। পরিস্থিতির অবনতি হলে মঙ্গলবার রাতে বিশেষ ব্যবস্থায় তাকে ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।