আশুলিয়ায় বাস থেকে তরুণীর স্যুটকেসবন্দী লাশ উদ্ধার

রবিবার, মার্চ ১৫, ২০২০

জাহিন সিংহ, সাভার থেকে : সাভারের আশুলিয়ায় যাত্রীবাহী দূরপাল্লার একটি বাস থেকে স্যুটকেস বন্দী অজ্ঞাত এক তরুনীসহ আরো তিন জনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ । নিহত ওই তরুণীর নাম পরিচয় এখনো পাওয়া যায়নি।

শনিবার গভীর রাতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে আশুলিয়ার নবীনগর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় সেবা গ্রীন লাইন (ঢাকো মেট্রো ব-১৫-৩৯৮৭) নামে দূরপাল্লার একটি পরিবহন থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নবীনগরের সেবা গ্রীন লাইন পরিবহনের কাউন্টারের সত্বাধিকারী মো. লিটন জানান, তাদের বাসটি রাজধানীর গাবতলী থেকে গোপালগঞ্জে যাত্রী পরিবহন করে। শনিবার দুপুর আড়াইটায় তাদের কাউন্টারের ঊনিশ জন যাত্রীসহ মোট চল্লিশ জন যাত্রী নিয়ে গোপালগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় বাসটি।

পরে আরিচা এলাকায় ফেরি পারাপারের পর নবীনগর থেকে ওঠা এইচ-১ সিটের এক যাত্রীকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি বলে তাদের জানায় বাসটির স্টাফরা। পরে বাসটি গোপালগঞ্জের নাজিরপুর পৌছলে ওই যাত্রীর বাসের বক্সে রেখে যাওয়া কালো রঙের একটি স্যুটকেস পাওয়া যায়।

এসময় স্যুটকেসটির মালিককে না পেয়ে আবারো একই বাসে ঢাকার উদ্দেশ্যে পাঠিয়ে দেয়া হয়। বিষয়টি পুলিশকে জানানো হলে শনিবার গভীর রাতে গাবতলী থেকে বাসটি এর চালক লালু মিয়া, সুপারভাইজর সবুজ শেখ ও হেলপার নয়নকে নিয়ে নবীনগরে পাঠায়। এরপর স্যুটকেস খুলে এক তরুনীর লাশ উদ্ধার করে আশুলিয়া থানা পুলিশ ও পিবিআই’র কর্মকর্তারা।

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাসুদ মুন্সি জানান, নবীনগর এলাকায় বাসটির বক্স খুলতেই ভেতর থেকে কিকট দুর্গন্ধ বের হয়। পরে পিবিআই ও পুলিশের উপস্থিতিতে স্যটকেসটি খুলে ভিতর থেকে অর্ধগলিত অবস্থায় এক তরুণীর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করা হয়।

আশুলিয়া থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) ফজলুল হক জানান, হত্যার পর ওই তরুনীকে লাশ স্যুটকেসে ভরে যাত্রীবেশে কৌশলে বাসে রেখে গেছে হত্যাকারী। বিষয়টি তদন্ধ করে হত্যার কারণ ও জড়িতদের সনাক্তের চেষ্টা চলছে।

এছাড়া আশুলিয়ার নারী ও শিশু হাসপাতাল থেকে এক যুবক ও গণকবাড়ী এলাকার একটি বাড়ি থেকে এক নারী ও সাভারের হেমায়েতপুরের জয়নাবাড়ি থেকে এক ব্যক্তির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়।