পাকিস্তান সফরে সিদ্ধান্ত বদলালেন মাহমুদউল্লাহ

শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২০

স্পোর্টস ডেস্ক: ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে তৃতীয় দফায় পাকিস্তান সফরে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

পাকিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র ওয়ানডেতে নিজের না থাকার ব্যাপারটি বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নুকে জানিয়েছিলেন তিনি।

অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর পাশে থাকতে মাহমুদউল্লাহ এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে সেই সময় জানিয়েছিলেন মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। পাকিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র ওয়ানডে ম্যাচটির সময়ে তার স্ত্রীর সন্তান জন্ম দেয়ার কথা।

তবে এবার নিজের সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছেন মাহমুদউল্লাহ। পাকিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র ওয়ানডেতে তিনি থাকছেন বলে জানা গেছে। শুধু থাকছেনই না, দলের অধিনায়কত্বের দায়িত্বটাও পালন করতে পারেন।

এ বিষয়ে মাহমুদউল্লাহ জানান, ‘এপ্রিলে আমি পাকিস্তানে যাব। ওয়ানডে ম্যাচ খেলে দেশে ফিরব। তবে চিঠি দিয়ে বোর্ডকে জানিয়েছি– আমি টেস্টে থাকতে পারব না। ওই সময়ে আমাদের দ্বিতীয় সন্তান পৃথিবীতে আসবে। এমন বিশেষ মুহূর্তে পরিবারের কাছে থাকা গুরুত্বপূর্ণ।’

বিসিবি সূত্রে জানা গেছে, পাকিস্তান সফরে মাশরাফি বিন মুর্তজা অধিনায়ক না থাকলে ৫০ ওভারের খেলায় মাহমুদউল্লাহকে দল সামলানোর দায়িত্ব দেয়া হতে পারে।

পাকিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র ওয়ানডে ম্যাচটি হবে করাচিতে ৩ এপ্রিল। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচটি হবে ৫ থেকে ৯ এপ্রিল।

মাহমুদউল্লাহ পাকিস্তান সফরে ফের না যাওয়ার সিদ্ধান্তে ক্রিকেটপ্রেমীরা বেশ অবাক হয়েছিলেন। তবে এমন সিদ্ধান্ত যে তিনি ক্ষোভের বশবর্তী হয়ে নিয়েছিলেন তা টের পেয়েছিলেন অনেকেই।

হঠাৎ টেস্ট দল থেকে বাদ পড়ার ধাক্কা হজম করতে তার কষ্ট হওয়ারই কথা। তবে গত কয়েক দিনে সেই কষ্টটা আড়াল করতে পেরেছেন তিনি। তার কথাতেই বিষয়টি বোঝা গেল।

টেস্টে ফেরার বিষয়ে বৃহস্পতিবার এক সাংবাদিকের সঙ্গে একান্ত আলাপে মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘চেষ্টা করব ভালো করতে। চেষ্টা থামবে না। ’

ফের ধারাবাহিক হয়ে সাদা জার্সি গায়ে চড়াবেন মাহমুদউল্লাহ, এমনটিই ইঙ্গিত দিলেন।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে শ্রীলংকা, জিম্বাবুয়ে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্টে দারুণ খেলেন মাহমুদউল্লাহ। গত বছর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও তার ব্যাট কথা বলেছে। কিন্তু ২০২০ সালে এসে পাকিস্তান সফরে সিরিজের প্রথম টেস্টে বাজেভাবে আউট হন মাহমুদউল্লাহ। বিষয়টি নির্বাচকমণ্ডলীরা মোটেই ভালোভাবে নেননি।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট থেকে তাকে বাদ দেয়া হয়। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট দল ঘোষণার সংবাদ সম্মেলনে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেছিলেন, মাহমুদউল্লাহকে ঢাকা টেস্ট থেকে বিশ্রাম দেয়া হয়েছে। এ সময় গুঞ্জন ওঠে তাকে সাদা বলে মনোযোগী হতে বলেছেন কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

সেই থেকে বলাবলি হচ্ছে মাহমুদউল্লাহর টেস্ট ক্যারিয়ার শেষ।