পার্টনার দূরে গেলে উৎকণ্ঠায় থাকেন?

রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২০

লাইফস্টাইল ডেস্ক : চাকরির কারণে অন্য শহরে চলে যেতে হয় আপনার সঙ্গীকে। এরকম একটা পরিস্থিতির মোকাবিলা অনেক মেয়েই ঠিকঠাক করে উঠতে পারেন না। প্রিয় মানুষটিকে দীর্ঘদিন না দেখে থাকতে হবে ভাবলেই তাঁরা উৎকন্ঠায় থাকেন।

অনেকে কিছুদিনের মধ্যে ব্যাপারটা সামলে উঠতে পারলেও অনেকেই পারেন না, আর সেই না-পারার জেরেই টালমাটাল হয়ে যেতে পারে সম্পর্কটাই। কান্নাকাটি, ঝগড়াঝাঁটি, নিরাপত্তাহীনতা প্রভাব ফেলে সম্পর্কে, ক্রমশ দুর্বল হতে শুরু করে বাঁধন এবং তার জেরেই আরো অশান্তি দেখা দেয়। কীভাবে সামাল দেবেন বিচ্ছেদজনিত এই উদ্বেগ-

লক্ষণগুলোকে চিনুন
প্রেম বা দাম্পত্যজীবনে প্রতি মুহূর্তেই নানা কারণে নিরাপত্তাহীনতার অনুভূতি দেখা দিতে পারে। কিন্তু তা সবসময় বড়ো হয়ে দাঁড়ায় না। কিন্তু কোনও একজন পার্টনার যদি অপরজনের অনুপস্থিতির কারণে সারাক্ষণ শঙ্কিত হয়ে থাকেন, সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার ভয়ে ভুগতে থাকেন, তা হলে চিন্তার কারণ যথেষ্টই রয়েছে। মাঝেমাঝে মানসিক উদ্বেগের শারীরিক প্রতিফলনও ঘটে। বমি হওয়া, মাথাব্যথা এ সবই মানসিক উৎকণ্ঠার লক্ষণ। এ সব লক্ষণ সম্পর্কে সচেতন থাকলে সামাল দেওয়ার উপায়টাও খুঁজে পাওয়া সম্ভব।

কথা বলুন
উৎকণ্ঠা, ভয়গুলোকে নিজের মধ্যে চেপে রাখবেন না। স্বামীর সঙ্গে কথা বলুন। অন্যদিকে সমস্যাটা যদি আপনার স্বামীর হয়, তাঁকে উৎসাহ দিন মনের কথা খুলে বলতে। মুখে ঠিক করে গুছিয়ে বলতে না পারলে চিঠিতে লিখে জানান। প্রতিটি আবেগের টানাপোড়েন সচেতনভাবে খেয়াল রাখুন। এই বিষয়টা একধরনের প্যানিক অ্যাটাক। সচেতন থাকলে প্যানিক অ্যাটাক আটকানো সম্ভব।

মনোবিদের সাহায্য নিন
বিচ্ছেদজনিত উদ্বেগ বা সেপারেশন অ্যাংজাইটির মোকাবিলা প্রথম থেকেই না করলে তা পরে আরও বড়ো আকার নিতে পারে। তাই নিজেরা সামলাতে না পারলে দেরি না করে আগেভাগেই মনোবিদের পরামর্শ নিন। কেন উৎকণ্ঠা হচ্ছে, তা কীভাবে আপনাদের সম্পর্কে প্রভাব ফেলতে পারে, এগুলো একজন পেশাদার মনোবিদই বুঝতে পারবেন। তাঁর পরামর্শ অনুযায়ী চলুন, শিগগিরই সমস্যা কাটিয়ে উঠতে পারবেন।