সুইসাইড নোটে যা লিখে গেলেন সুস্মিতা

বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০

অনলাইন ডেস্ক: শ্বশুরবাড়ির লোকজনের অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করার অভিযোগ উঠেছে ভারতের কর্ণাটকের জনপ্রিয় প্লে ব্যাক সিঙ্গার সুস্মিতা রাজের। গত রোববার দিবাগত রাতে আত্মহত্যা করেন তিনি।

তবে আত্মহত্যার আগে একটি সুইসাইড নোট লিখে যান সুস্মিতা। যা এখন পুলিশের হাতে।

পুলিশের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম নিউজ১৮ জানিয়েছে, রোববার রাত ১টায় ভাই সচিনকে হোয়াটসঅ্যাপ করেন সুস্মিতা। সেখানেই তিনি জানান, স্বামী শরৎ কুমার, ননদ গীতা ও শাশুড়ি বৈদেহি তার ওপরে অত্যাচার করে যাচ্ছেন।

কিন্তু সচিন মেসেজটি পড়েন ভোরে। তার আগেই সব শেষ। সুস্মিতার বাড়ি গিয়ে ভাই দেখেন গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি।

২৭ বছরের ওই গায়িকা লেখেন, ‘মা আমায় ক্ষমা করে দিও। আমি আমার ভুলের সাজা পেয়েছি। আমার স্বামী ও শাশুড়ি আমায় টর্চার করছে। একদিন আমায় বাড়ি থেকে বের করে দেওয়ার চেষ্টা করেছিল। ওদের ছেড়ো না। শরত, বৈদেহী, গীতা আমার মৃত্যুর জন্যে সরাসরি দায়ী, আমি ওদের অনেক অনুরোধ করেছি, তাও ওদের ভাবনাচিন্তায় কোনো পরিবর্তন আসেনি।’

তিনি আরও লেখেন, ‘আমি ওদের বাড়িতে মরতে চাইনি। বিয়ের দিন থেকেই সব শুরু হয়ে গিয়েছিল। আমি এটা কাউকে বলিনি। আমার অন্তিম সংস্কার আমার বাবার বাড়িতে আমার ভাইয়ের হাতে যেন হয়। আমার শ্বশুরবাড়ির কাউকে ছাড়বে না, তাহলে আমার আত্মা শান্তি পাবে না। মা তোমায় খুব মিস করব।’’

দেড় বছর আগে শরৎ কুমারের সঙ্গে বিয়ে হয় কর্ণাটকের গায়িকা সুস্মিতা রাজের। পুলিশ ঘটনার তদন্ত করছে। যদিও মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর থেকেই শরৎ, গীতা ও বৈদেহি পলাতক রয়েছেন।