পুলিশ লেখা গাড়ি থেকে চিৎকার, র‌্যাব গিয়ে উদ্ধার করল নারীকে

বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০

ঢাকা: রাজধানীর খিলগাঁও ফ্লাইওভারের নিচে র‌্যাব সদস্যরা টহল দিচ্ছিলেন। এ সময় পুলিশের স্টিকার লেখা একটি প্রাইভেটকার থেকে নারীর চিৎকার শুনে র‌্যাব সদস্যরা দুই অপহরণকারীকে গ্রেফতার করে। এসময় অপহৃত নারীকেও উদ্ধার করা হয়।

বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) রাতে র‌্যাব-৩ (সিপিবি-৩) এর কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিনা রানী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতার দুই অপহরণকারী হলেন- সজল আহম্মেদ (২৮) ও মামুন হোসেনকে (২৬)।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিনা রানী বলেন, মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় রাজধানীর খিলগাঁও ফ্লাইওভারের নিচে র‌্যাব সদস্যরা টহল দিচ্ছিলেন। এ সময় একটি প্রাইভেটকার থেকে নারীর চিৎকার শুনে র‌্যাব সদস্যরা দুই অপহরণকারী সজল আহম্মেদ ও মামুন হোসেনকে গ্রেফতার করে তাকে (অপহৃত নারী) উদ্ধার করেন।

ভিক্টিমকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে র‌্যাব-৩ (সিপিবি-৩) এর কোম্পানি কমান্ডার বলেন, ওই নারী একজন গৃহিনী। দুই সন্তান ও স্বামীসহ রাজধানীর একটি ভাড়া বাসায় বসবাস করেন তিনি। গ্রেফতার সজলের সঙ্গে ভিক্টিমের বিয়ের আগে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ভিক্টিমের কিছু ভিডিও চিত্র তার মোবাইল ফোনে ধারণ করেন। পরে সজল ভিক্টিমকে বিয়ে করতে অস্বীকার করলে ভিক্টিম অন্য জনকে বিয়ে করেন। কিন্তু বিয়ের পর থেকে সজল তার কাছে থাকা ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার কথা বলে হুমকি দিয়ে আসছিলেন।

তিনি আরও বলেন, ওই গৃহিনী ভয়ে সজলের দাবি পূরণ করে আসছিলেন। এক পর্যায়ে সজলের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন তিনি। এতে সজল ক্ষুদ্ধ হয়ে ভিক্টিমের ছবি, ভিডিও ফেসবুক ও ইউটিউবে ছড়িয়ে দেয়।

গ্রেফতার সজলের বরাত দিয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিনা জানান, প্রাইভেটকার চালক মামুনকে সঙ্গে নিয়ে সজল ওই নারীকে অপহরণের পরিকল্পনা করেন। গ্রেফতার মামুন তার গাড়িতে পুলিশ ও আইনজীবীর স্টিকার ব্যবহার করে দীর্ঘদিন ধরে মাদক বহন করে আসছিলেন। তাদের কাছ থেকে চারটি মোবাইল ফোন, মেমোরি কার্ড ও একটি প্রাইভেটকার জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃত দুজনের বিরুদ্ধে খিলগাঁও থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।