খালেদা জিয়ার মুক্তি চাইলে ফোন করলেন কেন: প্রশ্ন মান্নার

রবিবার, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০

ঢাকা : নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, বেগম জিয়া সারাদেশের নেত্রী, বেগম জিয়াকে আমিও নেত্রী মানি। আমি যখন দু’বছর কারাগারে ছিলাম তখন যেখানে সুযোগ পেয়েছে তিনি আমার মুক্তির কথা বলেছেন। আমার একটা কৃতজ্ঞতা বোধও আছে। অন্যায় ভাবে তাকে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। তিনি বলেন, তার মুক্তির পথে আইনের কোনো বাধা নেই তাহলে তিনি জামিন তো পেতেই পারেন। কিন্তু দেয়া হচ্ছে না।

রবিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ‘গণতন্ত্র ফোরাম’ আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, আপনারা বলছেন আপনারা বেগম জিয়ার সুচিকিৎসা চান এবং নিঃশর্ত মুক্তি চান। সত্যিই কি আপনার নিঃশর্ত মুক্তি চান? তাহলে ফোন করলেন কেন? কি কথা হয়েছে ফোনে?

তিনি বলেন, আজকে প্রথম আলোতে হেডিং করা হয়েছে খালেদা জিয়ার কারামুক্তি সরকারের পক্ষ থেকে সাড়া পায়নি বিএনপি। ওরা এরকম লিখলো কেন, কোন সাড়া পাওয়ার সম্ভাবনা ছিল? সরকার খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য সাড়া দিয়ে এগিয়ে আসবেন? আমি যেখানে সুযোগ পেয়েছি সেখানে বলেছি আজ আবারো বলছি আজকে যদি ঘোষণা হয় আগামীকাল সকাল ১০ টায় বেগম জিয়া পিজি হাসপাতাল থেকে মুক্তি পাবেন। তাহলে পিজি হাসপাতালে তাকে দেখতে এত মানুষ হবে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জায়গা দিতে পারবেন না। একটার পর একটা দুই নাম্বারি করে এই সরকার ক্ষমতায় আছে। আর বাবা (সরকার) বেগম জিয়াকে মুক্তি দেবে সেটা কল্পনা করা যায়? এটা কখনো সম্ভব নয়।

ডাকসুর সাবেক ভিপি বলেন, তিনদিন আগে পত্রিকা পারলাম বেগম জিয়ার বোন তার সাথে দেখা করে বাইরে এসে বললেন তার একটি হাত বেঁকে গেছে আর একটি হাত বেঁকে যাচ্ছে। উনি ঠিক মতো দাঁড়াতে পারেন না, খেতে পারেন না এমনকি সব খাবার তার বুকের ভেতর দিয়ে নামে না তখন বুকের মাঝে এমনিতেই একটি মোচড় মারে। আমি আগে মাঝে মধ্যে বক্তৃতা করতাম বেগম জিয়ার টেলিভিশনের পর্দায় আসলে অন্ধকার ঘর আলোতে জ্বলমল করতো। সেই মানুষটি এখন ধীরে ধীরে মৃত্যুর সাথে লড়াই করছেন এবং আস্তে আস্তে নিঃশেষ হচ্ছেন।

মান্না বলেন, আমি কিন্তু মনে করিনা বেগম জিয়া একা তিনি অসহায়। বেগম জিয়া বাংলাদেশের সবচাইতে সম্পদশালী রাজনীতিবিদ যার পেছনে ১৭ কোটি মানুষ আছে। এই ১৭ কোটি মানুষকে মুক্তির আন্দোলনের জন্য সঙ্গবদ্ধ করে যদি এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেন তাহলে আপনারা জিতবেন।

তিনি বলেন, যদি মনে করেন জীবন বাঁচানোর জন্য যেকোনো মূল্যে আমরা বেগম জিয়ার মুক্তি চাই সেই মূল্য এই সরকার দেবে না। একটা মানুষের মধ্যে মূল্যবোধই যদি না থাকে তাহলে কিভাবে সে কোন কিছুর মূল্য দিবে। যদি সরকারের মধ্যে সামান্য পরিমাণ কোন মূল্যবোধ থাকতো তাহলে তারা এত বড় নিষ্ঠুর হতে পারত না। এইজন্যই লড়াই ছাড়া কোনো বিকল্প আছে বলে আমি মনে করিনা। তাই আপনাদের কে সিদ্ধান্ত নিতে হবে, আপনারা কিভাবে বেগম জিয়াকে মুক্ত করবেন। আপনাদের যদি ঐক্যফ্রন্ট ভালো না লাগে আপনাদের কাছে যদি মনে হয় আর কারো দরকার নেই আমরা নিজেরাই পারবো তাও ঠিক। কিন্তু বেগম জিয়া মুক্তি কিন্তু লড়াই ছাড়া হবে না। লড়াইয়ের মাধ্যমেই বেগম জিয়াকে মুক্ত করতে হবে।

গণতন্ত্র ফোরামের সভাপতি ভিপি ইব্রাহিম এর সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন বিএনপি’র নির্বাহী কমিটির সদস্য বিলকিস ইসলাম, রাজিয়া আলিম, তাঁতী দলের আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ উদ্দিন প্রমুখ।