মিরপুরে বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা, লাল গালিচায় উষ্ণ অভ্যর্থনা

বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২০

স্পোর্টস ডেস্ক : হোম অব ক্রিকেট খ্যাত মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে পৌছেছেন অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ ট্রফিজয়ীরা। বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা ৬টা ২৭ মিনিটে মিরপুরে স্টেডিয়ামে তাদের বহনকারী ‘চ্যাম্পিয়ন বাস’।

বিকেল ৫টা ৫০ মিনিটে বিমানবন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে হোম অব ক্রিকেটের উদ্দেশে রওনা হয়েছিলেন যুবা টাইগাররা। বিমানবন্দর থেকে ভিআইপি প্রোটোকলে চ্যাম্পিয়ন বাস দিয়ে তাদের নিয়ে আসে। বহরের সাথে ছিলেন হাজার হাজার ক্রিকেটপ্রেমীরা। বিমানবন্দর থেকে মিরপুর পর্যন্ত সড়কে দাঁড়িয়ে তাদের শুভেচ্ছা জানান সাধারণ মানুষ।

মিরপুরেও অপেক্ষা করছেন ক্রিকেটপ্রেমী ও বিসিবি কর্মকর্তারা। বিমানবন্দরের মতো হোম অব ক্রিকেটেও তাদের ফুলেল শুভেচ্ছা দেয়া হবে। স্টেডিয়ামের বাইরে ক্রিকেটপ্রেমীরে ‘বাংলাদেশ’ ‘বাংলাদেশ’ স্লোগানে স্লোগানে মুখর।

এর আগে বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৪টা ৫৫ মিনিটে হযরত শাহজাহাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পা রাখেন বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। দীর্ঘ ১২ ঘণ্টায় প্রায় ৯ হাজার কিলোমিটার পথ পাড়ি দেশের মাটিতে পা রাখেন।

বিমান থাকে নামার সঙ্গে সঙ্গেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড-বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ও যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেলসহ বিসিবির কর্মকর্তারা তাদের স্বাগত জানান। তাদের অভ্যর্থনা দিতে বিমানবন্দরে ‘ওয়াটার স্যালুট’ দেয়া হয় আকবর আলী বাহিনীকে। পরে তাদের ভিআইপি লাউঞ্জে নিয়ে আসা হয়। বিমানবন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে মিরপুরের উদ্দেশ্যে রওনা হয়।

তাদের বরণে প্রস্তুত মিরপুরের ক্রিকেট পাড়া। ক্রিকেটারদের সাথে সেই ট্রফিকে বরণ করে নিতে মিরপুর স্টেডিয়াম সেজেছে বাহারি রং-এ। হোম অব ক্রিকেট খ্যাত শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের করপোরেট অফিসের মূল ফটকের সামনে টানানো হয়েছে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের প্রমাণ সাইজের ব্যানার। অদূরে আরও দুটি ছোট ব্যানার। একই সাথে ভবনের তিন তলা জুড়ে লাগানো হয়েছে ঝাঁড় বাতি।

বিমানবন্দর থেকে ভিআইপি প্রোটোকলে চ্যাম্পিয়ান বাস দিয়ে তাদের নিয়ে আসা হবে হোম অব ক্রিকেট মিরপুরে। সন্ধ্যায় সেখানে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার পর ডিনার করানো হবে। এরপরই তাদের ছেড়ে দেয়া হবে বাড়ি উদ্দেশ্যে।

ঢাকায় যাদের পরিবার আছে তারা রাতেই চলে যাবেন। ঢাকার বাইরে যারা যাবেন তারা আজ রাত একাডেমিতেই থাকবেন। বাড়ি যাওয়ার জন্য বিসিবি তাদের জন্য বাস এবং বিমানের টিকেটের ব্যবস্থা করেছে। যুব দলের ক্রিকেটারদের মধ্যে ৯ জন ক্রিকেটার ফিরবেন বিমানে। আর বাকি ৪ জন ক্রিকেটার বাসে করে বাড়ি ফিরবেন।