সাগরে ভাসছে লাশ, সৈকতে জীবিতদের আহাজারি

মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২০

ঢাকা : বঙ্গোপসাগর দিয়ে অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে আজ মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) ভোরে সেন্টমার্টিনের অদূরে ট্রলার ডুবির ঘটনায় ১৫ জনের লাশ উদ্ধার করেছে কোস্ট গার্ড। এর মধ্যে ১৪ জন নারী ও একটি শিশু।

এ ঘটনায় ৬৫ জনকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কারণ এখনও অর্ধশতাধিক নিখোঁজ রয়েছেন। কোস্ট গার্ড জানিয়েছে, ট্রলারে ১২৫ জন ছিলেন। তারা সবাই রোহিঙ্গা।

নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে ফিরে এসেও বুক চাপড়ে আহাজারি করছেন ২৫ বছর বয়সী রোহিঙ্গা নারী রমিজা বেগম। ট্রলার ডুবির ঘটনায় রমিজা উদ্ধার পেলেও তার পরিবারের ৪ সদস্য এখনও নিখোঁজ রয়েছে। তাদের ফিরে পেতে সাগরপানে তাকিয়ে চোখের পানি ফেলছেন রমিজা।

উখিয়ার রোহিঙ্গা শিবিরে বসবাসকারী রমিজা জানান, মালয়েশিয়া যাওয়ার উদ্দেশে তিনি এবং তার ভাই, বোন ও ভাগনিসহ পরিবারের ৭ জন ওই ট্রলারে উঠেছিলেন। কিন্তু ট্রলার ছাড়ার কিছুক্ষণ পরই সেটি ডুবে যায়। এরপর কোস্টগার্ড সদস্যরা তাকে ও তার ২ ভাইকে উদ্ধার করলেও বাকিদের খোঁজ নেই।

সেন্টমার্টিন দ্বীপের কোস্ট গার্ডের স্টেশন কমান্ডার শফিকুল ইসলাম জানান, অবৈধভাবে সাগর পথে মালয়েশিয়া যাওয়ার সময় একটি ট্রলার ডুবির ঘটনায় ১৫ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ৬৫ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। ট্রলারে শতাধিক যাত্রী ছিল। এখনও সাগরে ভাসমান লাশ দেখা যাচ্ছে। উদ্ধার কাজ অব্যাহত রয়েছে।