বিয়ের আসর থেকে পালানো প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২, ২০২০

বিয়ের আসর থেকে পালিয়েছিলেন প্রেমিক শুভ্র দাস (২৯)। আর তার পর থেকেই বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে বসেছেন প্রেমিকা নন্দীতা রানী সেন (২৭)। ঘটনাটি ঘটেছে দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে। বৃহস্পতিবার (৩০ জানুয়ারি) রাত থেকে উপজেলার আলোকডিহি ইউনিয়নের গছাহার গ্রামের ক্ষেণপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, ওই প্রেমিক শুভ্র দাস অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক সুকুমার দাসের ছেলে। অনশনে বসা ওই প্রেমিকা অভিযোগ করে বলেন, ২০০৮ সাল থেকে আত্মীয়তার সুবাদে শুভ্র দাসের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক। পড়াশোনার শুরু থেকে রংপুরে তার সাথে আমার নিয়মিত দেখাশোনা হত। দীর্ঘদিন ধরে সম্পর্ক চললেও তাকে একাধিকবার বিয়ের কথা বললেও সে রাজি হয়নি। কালক্ষেপণ করে পরবর্তীতে আমার কথা উড়িয়ে দেয়। এভাবে চলে যায় ৭ বছর। এরপর ২০১৫ সালে পুরোপুরি আমার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়।

ওই প্রেমিকা আরও জানায়, আমি আমার পরিবারের মাধ্যমে অনেক বার তার বাড়িতে বিয়ের জন্য প্রস্তাব পাঠাই। কিন্তু তার মা রাজি না থাকায় তা সম্ভব হয়নি। শেষমেশ গত ২০১৯ সালে ১৮ ডিসেম্বর তাকে অনেক কষ্টে বিয়ে করতে রাজি করালে বন্ধুবান্ধব নিয়ে বিয়ের জন্য তাকে নিয়ে মন্দিরে গেলেও সেখান থেকেও সে পালিয়ে যায়। ওই প্রেমিকা আরও জানায়, শুভ্র আমাকে বিয়ে করবে বলে আশ্বাস দিয়েছে। গত কয়েক মাস আগে আবারো সে পুনরায় আমার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। আমি খোঁজ নিয়ে জানতে পারি, তার পরিবার থেকে অন্য জায়গায় বিয়ের ব্যবস্থা করছে। আমার দাবি, শুভ্রদাসসহ তার পরিবারের লোকজন বিয়ের বিষয়টির সুরাহা দিতে হবে। তা না করা পর্যন্ত আমার অনশন চলবে।

এদিকে আজ সকালে এলাকায় জনসাধারণের মধ্যে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এ সময় প্রেমিক শুভ্র দাসের বাড়িতে ভিড় করেন এলাকাবাসী। এ বিষয়ে আলোকডিহি ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান মোছা. মাহামুদা ইসলাম শেফালী বলেন, স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলেছি, যাতে উভয় পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে স্থানীয়ভাবে বিষয়টির মীমাংসার করে দেয়া হয়।