ইসি পোস্ট অফিসে পরিণত হয়েছে: সুজন

বুধবার, জানুয়ারি ২৯, ২০২০

ঢাকা : সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজন সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার দাবি করেছেন, সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সামনে রেখে নির্বাচন কমিশন (ইসি) পোস্ট অফিসে পরিণত হয়েছে। কমিশনে কোনো অভিযোগ পড়লে তারা নড়েচড়ে বসে। অভিযোগ না করা হলে নীরব ভূমিকা পালন করছে।

বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে এসব অভিযোগ তোলেন তিনি। অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠান এবং সৎ, যোগ্য ও জনকল্যাণে নিবেদিত প্রার্থী নির্বাচনে ভোটারদের আহ্বান জানাতে এ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এতে সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা যোগ দেন।

সুজন সম্পাদক বলেন, জনপ্রতিনিধি নির্বাচন করার দায়িত্ব ভোটারদের। তাই সব প্রতিকূলতা উপেক্ষা করে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে সৎ ও যোগ্য ব্যক্তিকে নির্বাচিত করতে হবে তাদেরই।

তিনি বলেন, সিটি কর্পোরেশন নির্বাচানকে ঘিরে আমাদের নানা ধরনের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। অনেক প্রার্থী নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করলেও ইসি তা আমলে নিচ্ছে না বলে তা বন্ধ হচ্ছে না।

সুজন সম্পাদক আরও বলেন, সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মানুষের আস্থা না থাকলেও সেখানে ইভিএম মেশিন ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইসি। এতে করে ভোটারা কোথায় ভোট দিয়েছে তার কোনো প্রমাণ থাকছে না। ইভিএম মেশিনে কারও হাতের আঙুল না মিললে সে সব ভোট নির্বাচন কর্মকর্তারা ইচ্ছামতো প্রদান করতে পারবেন। যদি এ সব কর্মকর্তার কোনো দলের মতাদর্শে হন, তাহলে সেগুলো সেই পাল্লায় চলে যাওয়ার আশঙ্কা থাকছে। অথচ ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোট হলে কোনো অনিয়ম হলে তা শনাক্ত করা সম্ভব হতো।

তিনি বলেন, আমরা দেখতে পাচ্ছি শহরের সব স্থানে প্লাস্টিকের লেমিনিটিং করা পোস্টারে সয়লাব হয়ে গেছে। আদালতের নির্দেশনা উপেক্ষা করে প্লাস্টিকে মোড়ানো প্রার্থীদের পোস্টার ও লিফলেট ঝুলানো হয়েছে। নির্বাচনের পর তা আর সরিয়ে ফেলা হবে না, বৃষ্টি হলে সে সব নালা ও ড্রেনে গিয়ে পরিবেশের ক্ষতি করবে। অথচ ইসির পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে নীরব ভূমিকা পালন করছে।