স্বাস্থ্য ভালো রাখতে রান্নায় সঠিক তেলের ব্যবহার

মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২৮, ২০২০

স্বাস্থ্য ডেস্ক : বর্তমানে মানুষ স্বাস্থ্যসচেতন। পরিবারের সবাইকে সুস্থ রাখতে নিজের হাতেই রান্নাবান্না করেন। একেবারে সেরা মানের তেল-মশলা ব্যবহারের উপর বিশেষ গুরুত্ব দেন। তাই রান্নার তেল সম্পর্কেও কিছু জরুরি তথ্য জেনে রাখা উচিত।

মনে রাখবেন, খাবার থেকে তেল একেবারে ছেঁটে ফেলাটা কোনো কাজের কথা নয়। তাতে জেল্লা হারাবে আপনার ত্বক, প্রতিটি হাড়ের জোড়ে লুব্রিক্যান্টের অভাবে ঘর্ষণ বাড়বে। আপনি ভৌগোলিকভাবে যেখানে থাকেন, সেই অঞ্চলে যে তেলটি প্রাকৃতিকভাবে সবচেয়ে সহজলভ্য, সেটি নিঃসন্দেহে আপনার স্বাস্থ্যের পক্ষে ভালো। তবে কোন কাজে কোন তেল ব্যবহার করা সম্ভব, তারও একটা নির্দিষ্ট নিয়ম আছে।

অলিভ অয়েল: অলিভ অয়েলের ফ্লেভার খুব হালকা। সাঁতলে নিয়ে যে সব রান্না করা হয়, তার জন্য এই তেল আদর্শ। রসুন, পার্সলে, চিকেন, চিংড়ি ইত্যাদি অলিভ অয়েলে হালকা টস করে নিয়ে পাস্তা রাঁধুন – মন ভরে যাবে খেয়ে! হোয়াইট সস আছে বা চিজ় দেওয়া হচ্ছে এমন রান্নার জন্যও অলিভ অয়েল আদর্শ। তবে মনে রাখবেন, এটি ডিপ ফ্রাইংয়ের জন্য ভালো নয়। ডুবো তেলে মুচমুচে করে কিছু ভাজতে গেলে তেলের উত্তাপ যা হওয়া উচিত, তাতে অলিভ অয়েল পুড়ে যাবে।

এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল: স্যালাড বা চিজ়ের উপর থেকে হালকা এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল ছড়িয়ে দিন – পদটির স্বাদই খুলে যাবে! এর ফ্লেভার আর অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টের গুণ কিন্তু বেশি আঁচে নষ্ট হয়ে যায়। এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল রান্নার পক্ষে অনুপযোগী।

বাদাম তেল: ডিপ ফ্রাই করার জন্য আদর্শ তেল। সবচেয়ে বড়ো কথা হচ্ছে, বাদাম তেলে ভাজাভুজি করলেও কোনও বিশেষ খাবারের স্বাদ তেলে প্রবেশ করে না। তাই চিকেন পকোড়া ভাজার পরে সেই তেলেই আপনি ফ্রেঞ্চ ফ্রাই ভেজে নিতে পারবেন স্বাচ্ছন্দে!

অ্যাভোকাডো তেল: গ্রিল করা বা চড়া আঁচে ভাজার জন্য আদর্শ। খুব বেশি তাপেও তেলে কোনও বিক্রিয়া হয় না, তবে দাম বেশ বেশি।

সরিষার তেল: বিশেষ করে ভারতীয় রান্নাবান্না ও ভাজাভুজির জন্য আদর্শ। বেশি তাপ সহ্য করতে পারে। নিজস্ব গন্ধ আর ফ্লেভারের জন্য কাঁচাও ছড়িয়ে দেওয়া যায় বিশেষ বিশেষ রান্নার উপর। চেষ্টা করুন নন-রিফাইন্ড তেল ব্যবহার করার।

ভেজিটেবিল অয়েল: কোনো ফ্লেভার শোষণ করে না, কোনও খাবারে নিজস্ব স্বাদ বা গন্ধও যোগ করে না। অত্যন্ত হাই স্মোক পয়েন্ট। ফলে ভাজাভুজি করার জন্য খুব ভালো। কেক বেক করার জন্যও আজকাল মাখনের বদলে ভেজিটেবিল অয়েলের পরীক্ষামূলক ব্যবহার হচ্ছে। বিশেষ করে ব্রাউনিতে তো ভেজিটেবিল অয়েল বহুল ব্যবহৃত।

নারকেল তেল: মাখনের পরিবর্তে নারকেল তেল দিয়ে বেক করার চেষ্টা চলছে গোটা পশ্চিমি দুনিয়া জুড়ে – বিশেষ করে ভেগান রেসিপির ক্ষেত্রে তা অপরিহার্য হয়ে উঠছে ক্রমশ। আমাদের দেশে বহুদিন ধরেই নারকেল তেল দারুণ জনপ্রিয়। দক্ষিণ ভারতে নারকেল তেলই রান্নার প্রধান মাধ্যম। ভাজাভুজিও করা যায় স্বচ্ছন্দে।