সাভারে পৃথক শিশু ধর্ষণের ঘটনায় আটক ৩

রবিবার, জানুয়ারি ২৬, ২০২০

জাহিন সিংহ, সাভার থেকে : সাভারে পৃথক ঘটনায় দুই শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে তিনজনকে আটক করা হয়। রোববার বিষয়টি নিশ্চিত করে সাভার মডেল থানা পুলিশ।

পুলিশ জানায়, সাভার পৌর এলাকার ব্যাংক কলোনি মহল্লায় সিলেটের সাহেব আলী ও জেসমিন নামের এক দম্পতি একটি ভাড়া বাড়িতে বসবাস করে আসছিলেন। ওই দম্পতি নিজের সন্তানকে দেখা শুনা করার জন্য সিলেট থেকে নিজের চৌদ্দ বছরের বোনকে তাদের ভাড়া বাড়িতে নিয়ে আসেন। ওই শিশুর বোন জেসমিন নিজের বোনকে ঘুমের ঔষধ সেবন করে নিজের স্বামী সাহেব আলীকে দিয়ে ধর্ষণ করান এবং প্রায় এক বছর ধরে ওই শিশুকে তার দুলাভাই হত্যার হুমকি দিয়ে ধর্ষণ করে আসছিলেন বলে জানা গেছে।

পরে শিশুটি নির্যাতন সইতে না পেরে এক পর্যায়ে ধর্ষণের বিষয়টি মোবাইল ফোনে তার বাবা মাকে জানান। পরে শিশুটির বাবা মা ব্যাংক কলোনীতে এসে ধর্ষণের শিকার শিশুটিকে নিয়ে সিলেট চলে যান। এঘটনায় আবারও ওই শিশুটির দুলা ভাই সাহেব আলী ও জেসমিন সিলেট গিয়ে তাদের আপন বড় ভাইয়ের দুই বছরের মেয়েকে অপহরণ করে ব্যাংক কলোনীতে নিয়ে আসেন।

এরপর ওই দম্পতি তার ভাইকে ফোনে জানান, তার মেয়ে শিশুকে পেতে হলে তার বোনকে আবারও তাদের ভাড়া বাড়িতে পাঠিয়ে দিতে হবে। এঘটনায় ভুক্তভোগীর পরিবার র‌্যাব-৪ এর সহয়তা নিলে গতকাল সাভারের ব্যাংক কলোনী এলাকায় ভাড়া বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ওই দম্পতিকে আটক করে ও দুই বছরের শিশুকে র‌্যাব উদ্ধার করেন। রোববার দুপুরে সাভার মডেল থানায় মামলা দায়ের করে তাদেরকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন র‌্যাব ৪।

অন্যদিকে, সাভারের আমিনবাজারের হিজলা গ্রামে নিজের ১২ বছরের মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে নুর ইসলাম নামের (৩৫) এক বাবাকে আটক করেছে পুলিশ। রোববার বিকেলে আমিনবাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে সাভার মডেল থানা পুলিশ।

শিশুটির মা জানান, প্রায় এক বছর ধরে তার মেয়েকে বিভিন্ন ভাবে ধর্ষণের চেষ্টা করে আসছিলেন তার বা নুর ইসলাম। পরে আজ শিশুটিকে ধর্ষণ করতে না পেরে হত্যার চেষ্টা করলে শিশুটি চিৎকার দিলে প্রতিবেশীরা পুলিশকে জানালে পুলিশ তাকে আটক করে।

সাভার মডেল থানার ইন্সপিক্টর (অপারেশন) জাকারিয়া হোসেন বলেন, ধর্ষণের অভিযোগে আটকৃতদের আদালতে প্রেরণ করে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।