উন্নয়নের রূপরেখায় নির্বাচনী ইশতেহার দিলেন আতিক

রবিবার, জানুয়ারি ২৬, ২০২০

ঢাকা: নগরবাসীর জীবনমানেরও উন্নতি সাধন করার ঘোষণা দিয়ে নির্বাচনী ইশতেহার দিলেন উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম।

ইশতেহার ঘোষণার সময় আতিক বলেন, ঢাকার এলাকাভিত্তিক সমস্যা শনাক্ত করে সেগুলোর স্থায়ী সমাধানের মধ্য দিয়ে এলাকার উন্নয়ন ও আধুনিকায়ন করাটা অত্যন্ত জরুরি। এই এলাকাভিত্তিক পরিবর্তনই নগরীর সামগ্রিক পরিবর্তন নিয়ে আসবে। যার ফলে এই
নগরীতে বসবাস করা মানুষগুলা সকল নাগরিক সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। আমার প্রধান লক্ষ্য, এই নগরীকে কেবল বসবাস উপযোগী নয়, বরং নগরবাসীর জীবনমানেরও উন্নতি সাধন করা।

রবিবার (২৬ জানুয়ারি) গুলশানের লেকশোর হোটেলে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করার সময় তিনি এসব কথা বলেন।

সবাই মিলে সবার ঢাকা, সুস্থ, সচল আধুনিক ঢাকা গড়ার প্রতিশ্রুতি নির্বাচনী ইশতাহার ঘোষণা করেন আতিকুল ইসলাম।

আতিক বলেন, ‘ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন উপ-নির্বাচন ২০১৯-এ প্রদত্ত নির্বাচনী ইশতেহারের অধিকাংশ কাজই শুরু হয়েছে। আমার গত ৯ মাসের অভিজ্ঞতা এবং উপলব্ধিকে কাজে লাগিয়ে আগামীর আকাঙ্ক্ষিত ঢাকা গড়ার লক্ষ্য অর্জনে পেশ করছি আমার ত্রিমুখী ইশতেহার।’

তিনি বলেন, ‘উন্নয়ন-অগ্রগতির মহাসড়কে দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলেছে বাংলাদদেশ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদূরপ্রসারী নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্বে এসডিজি পূরণে এক রোল মডেল। উন্নয়নের এ আগ্রযাত্রায় অংশ নিতে, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নির্দেশে ও ঢাকা উত্তরের নাগরিকবৃন্দের আহ্বানে সাড়া দিয়ে, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে আমি সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন ২০২০ -এ অংশ নিচ্ছি। আজ সবাই মিল সবার ঢাকা গড়ার প্রতিশ্রুতি নিয়ে আপনাদের সামনে এসেছি। আমি বিশ্বাস করি, সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে সততা-নিষ্ঠার সাথে কাজ করলে, সুস্থ, সচল ও আধুনিক ঢাকা গড়তে পারবো।’

৪০০ বছরের পুরনো শহর-ঢাকা; যার বাঁকে বাঁকে ঐতিহ্য, ইতিহাস, সংগ্রাম আর বিনির্মাণের গল্প। মহান মুক্তিযুদ্ধের পর ঢাকা বাংলাদেশের রাজধানী। রাজধানী ঢাকাকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশ বিকশিত হয়েছে। বিশ্বের জনবহুল শহরের মধ্যে ঢাকা অন্যতম। ঘনবসতিপূর্ণ এ শহরের মানুষের যাপিত-জীবনে নানা সীমাবদ্ধতা থাকলেও এ শহর আমাদের কাছে বড় আবেগের, বড় ভালোবাসার- বলেন আতিকুল।

তিনি আরও বলেন, ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার রাজধানী ঢাকার উন্নয়নে বহু কাজ করেছে। আরও বহু কর্মসূচি বাস্তবায়িত হচ্ছে। একটি শহরের প্রাণ হচ্ছে শহরের পাড়া ও মহল্লাগুলো। সুস্থ, সচল ও আধুনিক ঢাকা গড়তে গেলে প্রতিটি এলাকা, পাড়া ও মহল্লাকে।
আলাদাভাবে নজর দিতে হবে।’