পিকে হালদারসহ ২০ জনের ব্যাংক হিসাব ও পাসপোর্ট জব্দের নির্দেশ

মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২১, ২০২০

ঢাকা : প্রায় ৩ হাজার ৬০০ কোটি টাকা নিয়ে লাপাত্তা হয়ে যাওয়া ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্স সার্ভিস লিমিটেডের পরিচালক প্রশান্ত কুমার হালদারসহ (পিকে হালদার) ২০ জনের সব সম্পদ ক্রোক, ব্যাংক হিসাব ও পাসপোর্ট জব্দের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। সেইসঙ্গে এই ২০ জনের সম্পদের হিসাব ১৫ দিনের মধ্যে আদালতে দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এছাড়া কোম্পানি পরিচালনার জন্য স্বাধীন পরিচালক ও চেয়ারম্যান হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গর্ভনর ইব্রাহিম খালেদকে নিয়োগের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি পিকে হালদারকে দেওয়া ঋণ সংক্রান্ত যাবতীয় কাগজপত্র আগামী ১৫ দিনের মধ্যে আদালতে দাখিল করতে বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারি) বিচারপতি মোহাম্মদ খুরশিদ আলম সরকারের একক বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে আবেদনকারীর পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট শাহরিয়ার কবির, কোম্পানির পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার মাহফুজুর রহমান মিলন।

ব্যাংক হিসাব ও পাসপোর্ট জব্দের আওতায় থাকা অন্য ১৯ জন হলেন- কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম নুরুল আলম, পরিচালক জহিরুল আলম, নাসিম আনোয়ার, বাসুদেব ব্যানার্জি, পাপিয়া ব্যানার্জি, মোমতাজ বেগম, নওশেরুল ইসলাম, আনোয়ারুল কবির, প্রকৌশলী নরুজ্জামান, আবুল হাসেম, মো. রাশেদুল হক, পিকে হালদার, পিকে হালদারের মা লীলাবতী হালদার, স্ত্রী সুষ্মিতা সাহা, ভাই প্রিতুষ কুমার হালদার, চাচাতো ভাই অমিতাব অধিকারী, অভিজিৎ অধিকারী, ব্যাংক এশিয়ার সাবেক পরিচালক ইরফান উদ্দিন আহমেদ, পিকে হালদারের বন্ধু উজ্জ্বল কুমার নন্দী।

এমএম স্ট্যাকচারাল লিমিটেড কোম্পানি ৮ কোটি টাকার দাবিতে ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিস লিমিটেডের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলার শুনানি নিয়ে আদালত আজ এ আদেশ দেন। এ বিষয়ে পরবর্তী আদেশের জন্য ২ ফেব্রুয়ারি দিন ঠিক করেছেন আদালত।