রান্নাঘরেও জমিয়ে তুলুন প্রেম

রবিবার, জানুয়ারি ১২, ২০২০

লাইফস্টাইল ডেস্ক : পরস্পরের সবচেয়ে কাছাকাছি আসার একটা উপায় হলো কফিশপ বা রেস্তোরাঁয় খানিক একান্ত সময় কাটানো। কিন্তু দু’জনে মিলে যদি একসঙ্গে রান্না করা যায়, তা হলে শুধু যে পরস্পরের খাদ্যাভ্যাস, পছন্দ-অপছন্দ সম্পর্কে জানা যায় তাই নয়, নানা অভিজ্ঞতাও ভাগ করে নেওয়া যায়। তাছাড়া রান্নার মতো কাজ একা একা করতে গেলে একঘেয়ে লাগতে পারে, দু’জনে মিলে করলে পরস্পরের প্রতি ভালো লাগাটাও বাড়ে-

মানসিক আদানপ্রদান
স্বামীর সঙ্গে বেশিক্ষণ সময় কাটানো হয় না, এটাই কি আপনার অনুযোগ? তা হলে ছুটির দিনে রান্নাঘরের কাজটা দু’জনে মিলে ভাগ করে নিয়ে দেখুন। কী রান্না হবে, কেমন করে রান্নাটা করা হবে, এ সব নিয়ে কথা বলুন দু’জনে। যৌথ প্রচেষ্টায় করা রান্নাটা দু’জনে মিলে খেতেও দারুণ লাগবে নিশ্চিতভাবেই!

নতুন কিছু শেখার সুযোগ
রান্না মানে যা হোক তা হোক করে কিছু একটা বানিয়ে ফেলা নয়, রান্না কিন্তু আসলে একটা শিল্প! খাবারের উপাদান, রং, কাটাকুটি, মশলা মাখানো, সঠিকভাবে জিনিসটা তৈরি করা এবং সব শেষে পরিবেশন এবং খাওয়া- সব মিলিয়ে বিষয়টা শিল্পকর্মের চেয়ে কোনও অংশে কম নয়! দু’জনে মিলে এই কাজটা করলে সেই একই সূত্রে সংসারের দায়িত্বভাগ করে নেওয়ার ব্যাপারটাও এসে যায়, যা সম্পর্ক সুখের করে তোলার অন্যতম শর্ত।

কিচেন রোমান্স
সারা সপ্তাহ কাজের চাপে পরস্পরের সান্নিধ্য উপভোগ করতে পারেন না যে সব দম্পতি, তাঁদের কাছাকাছি আসার অন্যতম স্থান হয়ে উঠতে পারে রান্নাঘর! রান্নার ফাঁকে ফাঁকে প্রেমের উত্তাপ পোহান, কিচেনের তাকে নানান অ্যাফ্রোডিসিয়াক তো রয়েছেই!

পরস্পরের পছন্দ বোঝার সুযোগ
আপনি ঝালমশলাদার খাবার ভালোবাসেন, অন্যদিকে আপনার পার্টনারের পছন্দ সাদামাটা হেলথ ফুড! অপরপক্ষের মনের মতো করে রান্না করাটাই এ ক্ষেত্রে চ্যালেঞ্জ! শুধু তাই নয়, রান্নার মাধ্যমে আপনার সঙ্গীর আরও নানা পছন্দ সম্পর্কেও জানার সুযোগ পেয়ে যেতে পারেন আপনি! সম্পর্ক সুন্দর করে তোলার জন্য এর চেয়ে আর বেশি কিছু চাই কি? তা হলে দেরি না করে এই উইকএন্ডেই দু’জনে মিলে ঢুকে পড়ুন রান্নাঘরে আর মশলাদার করে তুলুন আপনাদের প্রেম!