বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তির বাইরে মাশরাফি

রবিবার, জানুয়ারি ১২, ২০২০

স্পোর্টস ডেস্ক : বেশ কিছুদিন মাঠের বাইরে থাকার পর বিপিএল দিয়েই আবার ক্রিকেটের মাঠে ফিরে এসেছেন গত নির্বাচনে সংসদ সদস্য হওয়া বাংলাদেশ জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। বিশ্বকাপ ক্রিকেটের পর অনেকদিন মাঠের বাইরে ছিলেন তিনি।

সেই মাশরাফিকে এবার বিসিবি তাদের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে না রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আজ রোববার বিকেলে বিসিবির কার্যনির্বাহী বোর্ডের সভা শেষে মিডিয়ার সামনে এ ঘোষণা দেন সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

তবে বিসিবি নিজের ইচ্ছেতে মাশরাফিকে কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়নি। মাশরাফির অনুরোধেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি।

বিসিবির বোর্ড সভা শেষে মিডিয়ার সামনে মাশরাফির এ বিষয়টা নিয়ে নাজমুল হাসান পাপন বলেন, মাশরাফি অনুরোধ করেছেন, তাকে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে না রাখতে। তার বদলে আরেকজনকে চুক্তির আওতায় আনার অনুরোধ করেছেন জাতীয় ওয়ানডে অধিনায়ক। তার অনুরোধের প্রেক্ষিতেই এবার কেন্দ্রীয় চুক্তির বাইরে থাকবেন মাশরাফি।

উল্লেখ্য, বিসিবির সর্বশেষ কেন্দ্রীয় চুক্তিতে মাশরাফি ছিলেন ‘এ’ প্লাস ক্যাটগরির ক্রিকেটার। যার পারিশ্রমিক ছিল ৪ লাখ টাকা করে। এই ক্যাটাগরিতে ছিলেন আরও চারজন। সাকিব, মুশফিক, তামিম এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এক বছর নিষেধাজ্ঞার কারণে এমনিতেই বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ পড়েছেন সাকিব আল হাসান।

গত বিশ্বকাপের পর ক্রিকেটে থেকে দূরে গিয়ে রাজনীতির মাঠে ছিলেন মাশরাফি। মাঝে বিসিবি সভাপতি তার জন্য বিদায়ী সিরিজ আয়োজনের প্রস্তাব দিলেও তিন মাসের সময় নেন মাশরাফি। সেই সময়ও একদিন শেষ হয়। এরপর হুট করেই চলতি বঙ্গবন্ধু বিপিএলে মাঠে ফিরেন তিনি। ঢাকা প্লাটুন তাকে অধিনায়ক ঘোষণা করে। দল প্লে অফে উঠলেও গতকাল শনিবারের ম্যাচে ফিল্ডিং করতে গিয়ে হাতের তালু ফেটে যায় মাশরাফির। ১৪টি সেলাই পড়েছে সেই হাতে। বিপিএল অনেকটা অনিশ্চিত হয়ে গেছে ম্যাশের জন্য।

এর আগে গত ১০ জানুয়ারি সংবাদ সম্মেলনে প্রথমবার নিজের অবসর নিয়ে মুখ খুলেন মাশরাফি। তিনি বলেছিলেন, অবসরের কথা যেটা বললেন, আমার জায়গা থেকে বলতে পারি সবাই এরই মধ্যে আমাকে অবসরে পাঠিয়ে দিয়েছে! আমি হয়তো শুধু খেলেই যাচ্ছি। আমি খেলাটা উপভোগ করছি। মাঠ থেকে অবসর নেব কি নেব না সেটা এখনো সিদ্ধান্ত নিইনি। নিজের যদি ওরকম মনে হয়, ক্রিকেট বোর্ড যদি মনে করে চিন্তা ভাবনা করব। খেলাটা আমি যখন শুরু করেছিলাম তখন জাতীয় দল লক্ষ্য করে খেলিনি। কেউই শুরুটা এভাবে করে না।