কাউন্সিলরের বাড়িতে স্কুলছাত্রীকে ‘গণধর্ষণ’, ছেলেসহ গ্রেপ্তার ৩

মঙ্গলবার, জানুয়ারি ৭, ২০২০

গোদাগাড়ী: স্থানীয় একটি স্কুলের নবম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে রাজশাহীর গোদাগাড়ী পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলামের ছেলে ওসমান গণি (১৬)। গতকাল সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে প্রেমিকাকে নিজ বাড়ি ডেকে এনে বন্ধুদের নিয়ে ‘গণধর্ষণ’ করে সে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে, তাদের গ্রেপ্তারও করেছে পুলিশ।

আজ মঙ্গলবার কাউন্সিলর শহিদুল ইসলামের ছেলে ওসমান গণি, তার দুই বন্ধু রিদুয়ার আলী খন্দকার (১৬) ও তারেককে (১৭) আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

ওসমানের বন্ধু রিদুয়ার একই এলাকার বাসিন্দা খন্দকার মো. ওবাইদুল হকের ছেলে। তারেকের বাবার নাম মোস্তফা। তারা জোদগেমাইদাস এলাকার বাসিন্দা।

মামলার এজাহার থেকে জানা গেছে, প্রেমের সম্পর্ক থাকায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই স্কুলছাত্রীকে নিজের বাড়ি ডেকে আনে ওসমান। সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে কাউন্সিলরের বাড়িতে আসার পর রিদুয়ার ও তারেককে সঙ্গে নিয়ে ওই মেয়েকে গণধর্ষণ করে তারা।

পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার পর ওই রাতেই ওসমান, রিয়াদুর ও তারেককে আসামি করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে এক অভিযানে আসামিদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

গোদাগাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খাইরুল ইসলাম বলেন, সোমবার রাতেই অভিযান চালিয়ে আসামিদের গ্রেপ্তার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

এ ছাড়া ধর্ষণের শিকার ওই স্কুলছাত্রীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।