খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ‌‌‘মিছিল করায়’ ছাত্রদল নেতাকে কুপিয়ে জখম

বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯

মাগুরা: মাগুরায় এক ছাত্রদল নেতাকে ছাত্রলীগ কর্মীরা কুপিয়ে জখম করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
আহত ওই ছাত্রদল নেতার নাম ইফতেখার হোসেন অংকুর। তিনি মাগুরা আদর্শ কলেজ শাখার আহ্বায়ক।
বুধবার রাতে শহরের কলেজ রোডে অগ্রণী ব্যাংকের সামনে তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক জখম করা হয়।
আশঙ্কাজনক অবস্থায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।
এ হামলার জন্য জেলা ছাত্রদল নেতৃবৃন্দ স্থানীয় ছাত্রলীগ কর্মীদের দায়ী করলেও তারা এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
অংকুরের পরিবার ও স্থানীয়রা জানান, রাত ৮ টার দিকে তিনি মাগুরা জেলা বিএনপি নেতা ইকবাল আকতার খান কাফুরের বাড়ির সামনে গেলে ১০-১৫ জনের একটি গ্রুপ ধারালো অস্ত্র নিয়ে তার ওপর হামলা চালায়।
এসময় হামলাকারীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার দুই পায়ে উপর্যুপরি কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করে।
ঘটনার পরপর মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।
আহত ছাত্রদল নেতা অংকুরের মামা আকতার হোসেন জানান, হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলেও অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় দায়িত্বরত চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী রাতেই তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।
মাগুরা জেলা ছাত্রদল সভাপতি আবদুর রহিম বলেন, সন্ধ্যায় বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ছাত্রদলের পক্ষ থেকে শহরে একটি মশাল মিছিল বের করা হয়।
ওই মিছিল শেষে অংকুর অগ্রণী ব্যাংকের সামনে গেলে চিহ্নিত ছাত্রলীগ কর্মীরা কোনো প্রকার উস্কানি ছাড়াই তার ওপর পরিকল্পিত হামলা চালায়।
শুধু তাই নয় হামলা শেষে তারা শহরে মিছিল করেছে বলেও জানান আবদুর রহিম।
তবে ছাত্রদলের এই অভিযোগ অস্বীকার করে মাগুরা জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মেহেদি হাসান রুবেল বলেন, এটা তাদের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কোনো বিষয় হতে পারে। এ ঘটনার সঙ্গে ছাত্রলীগের কোনো সম্পৃক্ততা নেই।
সন্ত্রাসী হামলার বিষয়ে সদর থানার ওসি সাইফুল ইসলাম বলেন, ঘটনার খবর পেয়েছি। কিন্তু এ ঘটনায় কে বা কারা জড়িত সেটি জানা যায়নি। তবে এ বিষয়ে থানায় অভিযোগ দেয়া হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।