শীতে শরীরের ময়েশ্চার বজায় রাখুন

বুধবার, ডিসেম্বর ১১, ২০১৯

লাইফস্টাইল ডেস্ক : সৌন্দর্য পিপাসু মানুষের সংখ্যা বাড়ছে দিন দিন। ফলে নিজেকে সৌন্দর্য সচেতন রাকাটা এখন জরুরি। প্রয়োজনের সেই তাগিদেই বাস্তবতা আপনাকে রূপ সচেতন করে তুলেছে। আপনার যে রূপটি আগে মানুষের চোখে পড়ে তা হচ্ছে আপনার ত্বক। আর ত্বকের সৌন্দর্য রক্ষা তাই এখনকার জীবনে নিত্যদিনের রুটিনে খুব সহজেই জাগয়া দখল করে নেয়।

দেখা মিলছে মিষ্টি কুয়াশার। সকালের ঝাঁঝালো রোদ এখন মিষ্টি লাগতে শুরু করেছে। প্রকৃতি জানান দেওয়ার আগেই আমাদের ত্বক জানান দিয়েছে শীত পড়ছে।

শীতকালে ত্বক ময়েশ্চার হারায়। আপনার ত্বকের ধরণ যেমনই হোক, এই শীতে তার ময়েশ্চার হারাবেই। ত্বকের এই ময়েশ্চার ধরে রাখার জন্য চাই কিছু প্রস্তুতি। শীতের শুরুতেই আমরা এই প্রস্তুতি গ্রহণ করি, নানা ক্রিম, তেল, জেল ইত্যাদি ক্রয়ের মাধ্যমে।

শীতে শরীরের ময়েশ্চার বজায় রাখার জন্য প্রথমেই প্রয়োজন লোশনের। বাজারে নানাধরণের লোশন পাওয়া যায়। জনসন প্রধানত বাচ্চাদের জন্য খুব ভালো; কিন্তু বড়রাও এই লোশন ব্যবহার করে থাকেন। জনসন বেবি লোশন ছোট সাইজের মূল্য ৮০-১০০ টাকা, মাঝারি সাইজের মূল্য ২০০-৩০০ টাকা, আর বড় সাইজের মূল্য ৩৫০-৫০০ টাকার মধ্যে। জনসন মিল্ক ছোট ও বড় সবাই ব্যবহার করে। মেরিল বেবী লোশনও আমাদের আবহাওয়ার সাথে খুব মানিয়ে যায়। পন্ডস লোশন ছোটটির মূল্য ৮০-১০০ টাকা। মাঝারি ১৫০-২০০ টাকা, বড় ২৫০-৩০০ চাহিদাও রয়েছে। এর মূল্য ছোট ১০০ টাকা, মাঝারি ১৫০ টাকা, বড় ২০০ টাকা। ভেসলিন বডি লোশন দুই সাইজের পাওয়া যায়। ভেসলিন বডি লোশন বড়টার মূল্য ৩০০-৪০০ টাকা। ছোটটির মূল্য ২০০-২৫০ টাকার মধ্যে। এ ছাড়া দেশি-বিদেশি বিভিন্ন ধরনের লোশন পাওয়া যায়, যা কি না আপনার ত্বকের ময়েশ্চার রক্ষা করবে।

শীতে ত্বকের অন্যতম সমস্যা হচ্ছে ঠোঁট ফাটা। শীত এলেই বেশির ভাগ লোকজনের ঠোঁট ফেটে যায়। সাধারণত শীতের শুরুতে ঠোঁট বেশি ফাটে এবং শীত চলে যাওয়ার সময়ও ঠোঁট ফাটে। তাই প্রতি রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে লিপজেল ব্যবহার করুন এবং দিনের বেলায় রোদে বের হওয়ার আগে লিপজেল ব্যবহার করুন। তিব্বত লিপজেলের মূল্য ৩০-৩৫ টাকা ও মেরিল লিপজেলের মূল্য ৩০-৩৫ টাকা। তিব্বত ও মেরিল দেশি লিপজেল, বিদেশি লিপজেলের মূল্য ৫০-৭০ টাকা। বিদেশি লিপজেলের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে লেরেলো। আপনার ত্বকের সাথে মানানসই যেটি সেটি সংগ্রহ করে নিন।

এই ঋতুতে প্রতি রাতে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। লিকুইড গ্লিসারিন ব্যবহারের সময় পানিতে মিশিয়ে ব্যবহার করা ভালো। আর দিনের বেলায় সান প্রটেকটিভ ফ্যাক্টর ব্যবহার করুন। সান প্রটেকটিভ না থাকলে অবশ্যই সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। আপনার বয়স যদি ২৫-এর বেশি হয় তাহলে ফেসিয়াল করুন মাসে একবার।

শীতকালে আরেকটি সমস্যা হচ্ছে পা ফাটা। পা ফাটা রোধ করার জন্য অনেকে গ্লিসারিন ব্যবহার করে থাকেন। তা ছাড়া পা ফাটা রোধে ক্রিম হচ্ছে ক্র্যাক ক্রিম। এর মূল্য ১০০-১৫০ টাকার মধ্যে।

‘ধুলা আর আর্দ্রতাহীনতা তো আছেই। পাশাপাশি শীতের মিঠে রোদটাও ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে আমাদের ত্বকে ও চুলে। তাই এ সময়ের প্রসাধনী বাছাই করতে হবে এই দিকগুলো মাথায় রেখে।