অমিত শাহসহ বিজেপির শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দেয়ার দাবি মার্কিন কমিশনের

মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১০, ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ লোকসভায় সদ্য পাস হওয়া নাগরিকত্ব সংশোধন বিলকে ‘ভুল পথের বিপজ্জনক মোড়’ হিসেবে বর্ণনা করেছে যুক্তরাষ্ট্রের ধর্মীয় স্বাধীনতাবিষয়ক আন্তর্জাতিক কমিশন (ইউএসসিআইআরএফ)।

বিলটি ভারতের পার্লামেন্টের উভয় কক্ষে পাস হলে দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা আরোপের দাবি জানিয়েছে কমিশন। আজ মঙ্গলবার পিটিআইয়ের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

টানা ৭ ঘণ্টা বিতর্ক শেষে গতকাল সোমবার স্থানীয় সময় দিবাগত রাত ১২টার পর লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধন বিল পাস হয়। বিলের পক্ষে ৩১১ ভোট পড়ে, বিপক্ষে ৮০। বিলটি এখন রাজ্য সভায় তোলা হবে। লোকসভায় বিল পাসের জন্য দেওয়া ভাষণে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেন, বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের সংখ্যালঘুরা যাঁরা ধর্ম, প্রাণ ও সম্মান রক্ষার তাগিদে অত্যাচারিত হয়ে ভারতে চলে এসেছেন, তাঁদের সবাইকে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে।

নাগরিকত্ব তাঁদেরই দেওয়া হবে, যাঁরা এই তিন দেশ থেকে ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে ভারতে চলে এসেছেন। আগের আইন অনুযায়ী, ১২ বছর ভারতে থাকলে কেউ নাগরিকত্ব পাওয়ার অধিকারী হতেন। সংশোধিত আইন অনুযায়ী, সেই সময়সীমা কমিয়ে ৬ বছর করা হয়েছে।

তবে বেশির ভাগ উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যকে এই বিলের আওতার বাইরে রাখা হয়েছে। সংবিধানের ষষ্ঠ তফসিলের আওতায় বিভিন্ন রাজ্যের যে যে অংশ রয়েছে এবং ‘ইনার লাইন পারমিট’ (আইএলপি) যে রাজ্যগুলোয় চালু রয়েছে, সেখানে এই আইন বলবৎ হবে না। আইএলপির আওতায় মণিপুর ছিল না। তাকেও অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে বলে অমিত শাহ জানান। বিলটি নিয়ে গতকাল একটি বিবৃতি দিয়েছে ইউএসসিআইআরএফ। বিবৃতিতে বলা হয়, লোকসভায় বিলটি পাস হওয়ায় তারা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।

ইউএসসিআইআরএফ বলেছে, নাগরিকত্ব সংশোধন বিল যদি ভারতীয় পার্লামেন্টের উভয় কক্ষে পাস হয়, তাহলে মার্কিন সরকারের উচিত ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও অন্য গুরুত্বপূর্ণ নেতৃত্বের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়টি বিবেচনা করা।