নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের চোখে উজ্জ্বল: প্রধানমন্ত্রী

সোমবার, ডিসেম্বর ৯, ২০১৯

ঢাকা : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘শুধু অর্থনৈতিক উন্নয়ন নয়, নারীর ক্ষমতায়নের জন্যও বাংলাদেশ এখন বিশ্বের চোখে উজ্জ্বল। নারী-পুরুষের সম্মিলিত প্রয়াসে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। গড়ে উঠছে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ। বেগম রোকেয়া নারী স্বাধীনতার যে স্বপ্ন দেখেছিলেন আজ সেই স্বপ্ন পূরণ করে বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ।’

সোমবার (৯ ডিসেম্বর) সকালে ঢাকায় ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে বেগম রোকেয়া পদক-২০১৯ ও রোকেয়া দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

এ বছর নারীশিক্ষা, নারী অধিকার, নারীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন, সাহিত্য ও সংস্কৃতির মাধ্যমে নারী জাগরণে অবদান রাখায় রোকেয়া পদক পেয়েছেন বেগম সেলিনা খালেক, নারীশিক্ষায় অধ্যক্ষ শামসুননাহার, ড. নুরুননাহার ফয়জননেসা (মরণোত্তর), নারী অধিকার, নারীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে মিজ পাপড়ি বসু এবং বেগম আখতার জাহান।

এই পাঁচ নারীর হাতে রোকেয়া পদক তুলে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মেয়েরা আয় করলে স্বাবলম্বী হলে পরিবারে পরিবার ও সমাজে তাদের সম্মান এবং গুরুত্ব নিশ্চিত হয়। নারীমুক্তি ও নারীর স্বাধীনতার জন্য নারীশিক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। বেগম রোকেয়ার দেখানো পথেই এগিয়ে যেতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের সরকার নারীদের শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে ও উচ্চ শিক্ষার পথ সুগম করতে বৃত্তির ব্যবস্থা করেছে। জাতির জনক মেয়েদের শিক্ষা অবৈতনিক করে দিয়েছিলেন। নারীদের জুডিশিয়াল সার্ভিসে প্রবেশের সুযোগ করে দিয়েছিলেন। সেই পদাঙ্ক অনুসরণ করে আমাদের সরকার হাইকোর্টে নারী বিচারপতি নিয়োগের সুযোগ করে দিয়েছে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘এখন সেনা, নৌ, বিমান, পুলিশ, র‌্যাবসহ সর্বত্র নারীদের বিচরণ। আমি প্রথমবারের মতো নারীদের সচিব পদে পদোন্নতির ব্যবস্থা করেছি। ডিসি-এসপিসহ বিভিন্ন উচ্চপদে নারীদের কাজের সুযোগ করে দিয়েছি।’

দেশর ৫ হাজার ৮০০ ডিজিটাল সেন্টার স্থাপনে নারীদের উদ্যোক্তা হওয়ার সুযোগ করে দেয়া হয়েছে জানিয়ে সরকারপ্রধান আরও বলেন, ‘নারীদের উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তুলতে সরকার সহজ শর্তে ব্যাংক ঋণ দেয়াসহ বিভিন্ন অর্থনৈতিক অঞ্চলে নারীদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করে দিয়েছে। দেশের ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চলে নারীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠান স্থাপনের সুযোগ করে দেয়া হবে। নারীদের ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থার জন্য দেয়া হবে পলিটেকনিক্যাল সেন্টার।’

তিনি বলেন, ‘জাতীয় সংসদের মাননীয় স্পিকার একজন নারী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী একজন নারী। এমনকি ক্ষমতাসীন ও বিরোধী দলের নেতাও নারী। সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে আজ নারীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত হয়েছে। নারীরা যোগ্যতা ও গর্বের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছে, দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।’

এসময় নারীর অগ্রগতিতে তাঁর সরকারের আর নানা পদক্ষেপ ও পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।