স্কুল মাঠে মাছ চাষের অভিযোগ প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে

সোমবার, ডিসেম্বর ২, ২০১৯

ভোলা : বর্ষায় বৃষ্টির পানি জমে থাকায় সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা। আর সেই সুযোগ কাজে লাগালেন স্কুলের প্রধান শিক্ষক। পানি নিষ্কাশনে কোনো পদক্ষেপ না নিয়ে বরং এ জলাবদ্ধতার সুযোগ নিয়ে সেখানে মাছ চাষের অভিযোগ উঠেছে খোদ বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। মাঠে পানি জমিয়ে রেখে মাছ চাষের কারণে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বঞ্চিত হচ্ছে খেলাধুলা থেকে। এ ছাড়া কোমলমতি শিক্ষার্থীরা মাঠের পানির ভেতর পড়ে ভিজে যায় তাদের পোশাক, বই-খাতা। অনেক সময় ঘটছে দুর্ঘটনা। তবুও নিজের লাভের জন্য মাঠের পানি নিষ্কাশনে পদক্ষেপ নিতে গাফিলতি করছেন প্রধান শিক্ষক!

এমন অভিনব দৃশ্য দেখা গেছে ভোলার লালমোহন উপজেলার গজারিয়া কাশ্মির প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। আর ওই বিদ্যালয়ের মাঠে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ চাষ করছেন প্রধান শিক্ষক আবুল কাশেম। এ ছাড়া মাঠের এক পাশে লাগানো হয়েছে লাউ-কুমড়ার চারা।

এর ডগা ছড়িয়ে পড়েছে মাঠে জমে থাকা পানির ওপরের মাচায়। বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিশু শিক্ষার্থী বলে, পানি থাকার কারণে আমরা মাঠে খেলতে পারছি না। মাঝে মাঝে এ পানির ভেতর পড়ে আমাদের জামা-কাপড়ও নষ্ট হয়ে যায়। তাই আমরা খুব দ্রুত বিদ্যালয়ের মাঠ থেকে পানি সরানোর দাবি করছি। তবে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কাশেম মাঠে মাছ চাষের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, পাশে একটি পুকুর রয়েছে।

বৃষ্টির পানির কারণে মাঠেও পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। তবে এখানে আমি মাছ চাষ করি না। এখানে যেসব মাছ দেখা যাচ্ছে, তা অন্য জায়গা থেকে এসেছে। এ ব্যাপার জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আইয়ুব আলী বলেন, বিষয়টি আমি এর আগে শুনিনি। এখন জেনেছি। শিগগিরই তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।