ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে গলা কেটে হত্যাচেষ্টা, প্রেমিক গ্রেপ্তার

শুক্রবার, নভেম্বর ২২, ২০১৯

কিশোরগঞ্জ: কিশোরগঞ্জের ভৈরবে মোবাইলফোনে ডেকে নিয়ে দুই সহযোগীসহ প্রেমিকাকে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে ব্লেড দিয়ে গলা কেটে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে আমিরুল ইসলাম (২৮) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গুরুতর আহত তরুণী (২৫) বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।
আমিরুল শহরের গাছতলাঘাট এলাকার আব্দুল হকের ছেলে।
পুলিশ ও ভুক্তভোগী তরুণীর মা জানান, আমিরুল জরুরি কথা আছে বলে বৃহস্পতিবার সকালে তরুণীকে গাছতলাঘাট এলাকার একটি নির্জন বাড়িতে ডেকে নেয়। সেখানে আমিরুল তার দুই সহযোগী সবুজ ও শরীফকে নিয়ে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়।
তরুণী তখন কৌশলে সেখান থেকে বের হয়ে আসার চেষ্টাকালে আমিরুল তাকে পেছন থেকে জাপটে ধরে ধারালো ব্লেড দিয়ে গলায় আঘাত করে। এতে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়লে আমিরুলসহ অন্য দুই সহযোগী পালিয়ে যায়।
পরে মেয়েটির চিৎকারে স্থানীয় লোকজন খবর দিলে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। খবর পেয়ে সেখানে তরুণীর আত্মীয়রা ছুটে আসেন।
এ প্রসঙ্গে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. কেএনএম জাহাঙ্গীর বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ওই তরুণীকে পুলিশ সদস্যরা হাসপাতাল নিয়ে আসেন। তখন তার গলায় কাটা দাগ ছিলো এবং তাকে আমরা অজ্ঞান অবস্থায় ভর্তি করি। মেয়েটির গলায় ৪ ইঞ্চি লম্বা কাটা দাগ ছিল। সেখানে প্রায় ১০টি সেলাই লেগেছে।
ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ শাহিন জানান, বৃহস্পতিবার রাতে তরুণীর মা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ধর্ষণ ও হত্যা চেষ্টার অভিযোগে আমিরুলসহ অন্য দুই সহযোগীর নামে একটি অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে আমিরুলকে গ্রেপ্তার করে।