যুবলীগের সপ্তম কাউন্সিলকে ঘিরে আলোচনায় যারা

বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২১, ২০১৯

ঢাকা: ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের অন্যতম সহযোগী সংগঠন আওয়ামী যুবলীগ। দীর্ঘ সাত বছর পর আগামী ২৩ শে নভেম্বর রাজধানী সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে যুবলীগের সপ্তম জাতীয় কংগ্রেস।

সংগঠনটি আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভ্যানগার্ড হিসেবে পরিচিত। আওয়ামী লীগ বিরোধী দলে থাকাকালীন সময়ে রাজপথে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যুবলীগ।

ক্যাসিনোকাণ্ডে বারবার যুবলীগের নাম আসায় ইমেজ সংকটে পরে সংগঠনটি। সরকারের শুদ্ধি অভিযানের আওতায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটক হন সংগঠনটির দক্ষিণ শাখার কয়েকজন শীর্ষ নেতা। এরপরই সংগঠনের চেয়ারম্যানকে অব্যহতি দেন সাংগঠনিক নেত্রী শেখ হাসিনা। তার আগে যুবলীগের সম্মেলনের নির্দেশ দেন শেখ হাসিনা।

সংগঠনের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য চয়ন ইসলামকে আহ্বায়ক ও যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হারুনুর রশিদকে সদস্য সচিব করে সম্মেলনের প্রস্তুতির আহ্বায়ক করা হয়।

শুদ্ধি অভিযানের পর যুবলীগের জাতীয় কংগ্রেসে নতুন নেতৃত্বের ব্যাপারে আগ্রহ রয়েছে তৃণমূলের। কাদের হাতে যাচ্ছে যুবলীগের পরবর্তী নেতৃত্ব? নতুন নেতৃত্বের কাঁধে থাকবে সংগঠনের ইমেজ পুনরুদ্ধারের বাড়তি দায়িত্ব।

যুবলীগের কংগ্রেস ঘিরে নতুন নেতৃত্বের ক্ষেত্রে শীর্ষ আলোচনায় রয়েছেন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট বেলাল হোসেন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন আহম্মেদ মহি, মঞ্জুর আলম শাহীন, সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ বদিউল আলম। এছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ পদে আলোচনায় রয়েছেন সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক হাসান তুহিন, যুবলীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক সুভাষ চন্দ্র হাওলাদার এবং সহ-সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান, যুবলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সরদার মোহাম্মদ আলী (মিন্টু)।

সম্মেলন ঘিরে আলোচনায় থাকা নেতাদের সঙ্গে আলাপকালে তারা বলেন, যুবলীগের দায়িত্ব পেলে তাদের প্রথম ও প্রধান দায়িত্ব হবে যুবলীগের হারানো ইমেজ ফিরিয়ে আনা। যুবলীগকে শক্তিশালী করার মাধ্যমে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরও শক্তিশালী করা এবং তাদের মধ্য থেকে যাকেই নেতৃত্বের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দায়িত্ব দিবেন তার নেতৃত্বে যুবলীগকে আরও সংগঠনিকভাবে শক্তিশালী করার জন্য কাজ করে যাবেন তারা।

এবারের সম্মেলনে যুবলীগ করার জন্য সর্বোচ্চ বয়সসীমা ৫৫ বছর বেধে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যুবলীগের প্রথম গঠনতন্ত্রে বয়সসীমা ছিলো ৩৫ বছর। সেখানে বলা ছিলো ৩৫ বছরের অধিক কেউ যুবলীগ করতে পারবে না।