শাহাদাতের ঘটনায় ফেঁসে গেলেন শহীদও

বুধবার, নভেম্বর ২০, ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক : সতীর্থকে পেটানোর ঘটনায় পাঁচ বছরের জন্য সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হয়েছেন জাতীয় দলের এক সময়ের তারকা প্রতিনিধি শাহাদাত হোসেন রাজিব। এর মধ্যে তার দুই বছরের সাজা স্থগিত করা হয়েছে। তবে শাহাদাতের ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে ফেঁসে গেছেন আরেক পেসার মোহাম্মদ শহীদ। জানা গেছে জাতীয় লীগের ম্যাচে সতীর্থ আরাফাত সানি জুনিয়রকে মারামারির সূত্রপাত করেন আরেক সতীর্থ পেসার মোহাম্মদ শহীদ।

শহীদই প্রথম ছুটে গিয়ে মিড অফ ফিল্ডার আরাফাত সানিকে শাসান এবং ধাক্কাও দেন। পরে রাজিব ছুটে গিয়ে প্রথমে থাপ্পড় এবং পড়ে লাথি মারেন আরাফাতকে। মারমারির বিষয়টি এখানেই সীমাবদ্ধ থাকছে না। জানা গেছে, শহীদের জন্যও কঠিন শাস্তি অপেক্ষা করছে। মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলেন, আমরা শহীদকেও শাস্তির আওতায় আনতে যাচ্ছি। তার বিষয়ে বসে একটা সিদ্ধান্ত হবে। এটা নিশ্চিত শহীদের বিরুদ্ধেও শৃঙ্খলাভঙ্গের শাস্তির খরগ ঝুলবে।

একের পর এক বিতর্কিত কাণ্ডে জড়িয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক এই পেসার শাহাদাত হোসেন। যেমন, কয়েক দিন আগে ট্রাফিক সিগন্যাল অমান্য করে উল্টোপথে গাড়ি চালিয়ে নেতিবাচক খবরের শিরোনামে এসেছিলেন তিনি। তার আগে গৃহকর্মীর গায়ে হাত তুলে জেলে গেলেন। আর এবার আরেক সতীর্থকে পিটিয়ে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন। এছাড়া এর আগে মোহাম্মদ শহীদের বিরুদ্ধেও নির্যাতন ও বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িত থাকার অভিযোগ এনেছিলেন তার স্ত্রী ফারজানা আক্তার।