এটিএম বুথে ডিজিটাল চুরি, হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা

বুধবার, নভেম্বর ২০, ২০১৯

ঢাকা : এটিএম বুথে ডিজিটাল চুরি। ২৪ ঘণ্টায় এটিএম বুথ থেকে একটি চক্রের দুইজন হাতিয়ে নিয়েছে ৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা। গেল শনি ও রোববার চট্টগ্রাম ও কুমিল্লার পূবালী ব্যাংকের তিনটি এটিএম বুথ থেকে এ টাকা হাতিয়ে নেওয়া হয়। অত্যাধুনিক চাবি এবং একটি ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহার করে চক্রটি টাকাগুলো হাতিয়ে নেয়। প্রতি বুথ থেকে ৩ থেকে সাড়ে ৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নিতে চক্রটি সময় নেয় ১ মিনিট থেকে ১ মিনিট ২৪ সেকেন্ড। ঘটনাগুলো স্থানীয় থানায় অভিযোগ করেছে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। পরে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) ঘটনাগুলোর তদন্ত শুরু করেছে।

এর আগেও এটিএম বুথে ডিজিটাল জালিয়াতির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে দেশি এবং বিদেশি চক্র। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি, পূর্ব) শাহিদুর রহমান জানান, ঘটনাগুলো ঢাকার বাইরের। তারা সোমবারই জানতে পেরেছেন। ঘটনার তদন্ত হচ্ছে। তদন্তের মাধ্যমে অপরাধীদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তার করা হবে। এছাড়া এদের ধরিয়ে দিতে পারলেও পুরস্কৃত করা হবে।

ভিডিচিত্রে দেখা যায়, মেরুন রঙের শার্ট, চশমা পরিহিত ৩০ থেকে ৩৫ বছর বয়সী এক যুবক এবং আকাশি কালারের শার্ট পরিহিত ৩৫ থেকে ৪০ বছর বয়সী দুই ব্যক্তি এটিএম বুথ থেকে প্রযুক্তির সহায়তায় টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। একটি ভিডিওতে দেখায় যায়, এটিএম বুথে ঢোকার পাঁচ সেকেন্ডের মধ্যে একটি বিশেষ চাবি দিয়ে এমটিএম মেশিনের মনিটরের সামনে অংশ খুলে ফেলে। ৩ সেকেন্ডের মধ্যে ভেতরের একটি সুইচে চাপ দিয়ে মনিটরটি লাগিয়ে দেয়। ১০ সেকেন্ডের মাথায় পকেট থেকে রিপোর্টের এর মতো একটি যন্ত্র বের করে সেটার বোতাম টিপতে থাকে। ৪৩ সেকেন্ডে মেশিনটি পকেটে রেখে দেয়। ৪৮ সেকেন্ডে একগুচ্ছ টাকা বেরিয়ে আসে। এরপর ৫ থেকে ৬ সেকেন্ড ব্যবধানে এটিএম বুথ থেকে ছয় দফায় গুচ্ছ গুচ্ছ টাকা বেরিয়ে আসতে থাকে। পকেটে ঢুকানো টাকাগুলো নিয়ে দ্রুত মেরুন রঙের মুখভর্তি ছোট ছোট দাঁড়িওয়ালা ব্যক্তি বেরিয়ে যায়।

পূবালী ব্যাংক কর্মকর্তারা জানান, ঢাকা ও চট্টগ্রামের তিনটি শাখা থেকে শনিবার ও রোববার দুই ব্যক্তি ৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা চুরি করে নিয়েছে। এর মধ্যে কুমিল্লা শহরের প্রবাল শাখা থেকে ৩ লাখ ৩০ হাজার, চট্টগ্রামের শেখ মুজিব রোড শাখা থেকে ৩ লাখ ১০ হাজার এবং চট্টগ্রাম শহরের কলেজ রোড শাখা থেকে ৩ লাখ ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় চক্রটির দুই সদস্য। এটিএম বুথের সিসিটিভি থেকে ঘটনাগুলো শনাক্ত করা হয়। লুটেরাদের ছবি ব্যাংকের শাখাগুলোয় টানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া পুলিশে অভিযোগ করা হয়েছে, যাতে তাদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে পারে।

পূর্বালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আবদুল হালিম চৌধুরী বলেন, এ দুর্ঘটনাটি ঘটার সঙ্গে সঙ্গে আমরা চিহ্নিত করতে পেরেছি এবং এ ঘটনার ভিডিও ফুটেজ রয়েছে। পূবালী ব্যাংকের সিস্টেম সুরক্ষিত রয়েছে। গ্রাহকদের কোনো চিন্তা নেই। এ ঘটনায় থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন। জড়িতদের ছবি ও পোস্টার বিভিন্ন জায়গায় লাগিয়ে দেওয়া হচ্ছে। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি জড়িতদের আইনের আওতায় আনতে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এটিএম বুথ থেকে টাকা লুটের সঙ্গে জড়িত রয়েছে দেশি এবং বিদেশি চক্র। এর মধ্যে গেল জুন মাসে ইউক্রেনের প্রায় ১৫ নাগরিককে শনাক্ত করেন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। তারা শুধু ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের অন্তত পাঁচটি এটিএম বুথ থেকে টাকা চুরি করেছিল। সেগুলো রাজধানীর?রেডিসন হোটেল, কাকরাইল, রামপুরার ডিআইটি সড়ক ও নিকুঞ্জ এলাকার। গেল ৩১ মে প্রথমে মধ্য বাড্ডার বুথ থেকে টাকা চুরি হয়। বাকি সব বুথে চুরি হয় ১ জুন। চুরি যাওয়া টাকার পরিমাণ ছিল প্রায় ১৬ লাখ। এর আগে রাজধানীর মধ্য বাড্ডার দুটি বুথ থেকে ৪ লাখ টাকা চুরি হয়েছিল। তদন্ত কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ডাচ্-বাংলা ব্যাংকসহ অন্তত চারটি বেসরকারি ব্যাংকের বুথ থেকে টাকা চুরি করেছে জালিয়াত চক্র।