সরকার উৎখাতের হুংকার কেবল ‘শব্দ দূষণ’ করবে: ইনু

মঙ্গলবার, নভেম্বর ১৯, ২০১৯

ঢাকা : কথায় কথায় নির্বাচিত সরকার উৎখাতের হুংকার কেবল শব্দ দূষণ করবে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু।

ইনু বিএনপিকে ইঙ্গিত করে বলেছেন, ‘নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দামের উঠা-নামা নিয়ে সরকারের আলোচনা-সমালোচনা বাদ দিয়ে নির্বাচিত সরকারকে উৎখাতের অপরাজনীতি গ্রহণযোগ্য নয়।’

মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ১৪ দলের নিয়মিত বৈঠক শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

ইনু বলেন, ‘সরকার উৎখাতের হুংকার দিয়ে নির্বাচিত শেখ হাসিনা সরকারের কিছুই হবে না। নিত্যপণ্যের দামের উঠানামার সঙ্গে সরকার উৎখাতের হুংকারের অপরাজনীতি বন্ধ করুন। সরকার নির্বাচিত হয় ৫ বছরের জন্য। আমাদের শেখ হাসিনা সরকার ১০ মাস পার করে ১১ মাসে পা রেখেছে। সদ্য নির্বাচিত সরকার। সমাজ ও রাষ্ট্রে যাপিত জীবনের সমস্যা দৈনন্দিন সমস্যা। দৈনন্দিন জীবনের একটা গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা হচ্ছে বাজার সমস্যা। নিত্যপণ্যের দামের উঠা-নামা আছে, প্রশাসনের কখনো সফলতা আছে, কখনো ক্ষমতার অপব্যবহার আছে, কখনো ব্যর্থতা রয়েছে।’

সাবেক তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘রাষ্ট্র-সমাজ ও অর্থনৈতিক পরিচালনায় যাপিত জীবনের দৈনন্দিন সমস্যা। এই সমস্যা সমাধানের জন্য সরকার ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা-গোষ্ঠী তৎপর হয়। সরকারের কর্তৃপক্ষ ব্যর্থ হলে সমালোচনা হয়, সরকার সমালোচনা শুনে উক্ত সমস্যার সমাধান করে। সমালোচনাকে আমরা স্বাগত জানাই। সমালোচনা সরকারকে সাহায্য করবে। আমাদের সাম্প্রতিককালে চিনিকান্ড, চাপাইকান্ড, ভোলাকান্ড, বুয়েটের হত্যাকান্ড ও পেঁয়াজকান্ড ঘটার সঙ্গে সঙ্গে শেখ হাসিনা সরকার পদক্ষেপ নিয়েছে, সমাধান করার উদ্যোগ নিয়েছে। আমাদের সরকার চোখ – কান বন্ধ করেনি।

জাসদ নেতা বলেন, নিত্যপণ্যের দামের উঠা নামা সঙ্গে জড়িত অসত ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটকে শুদ্ধি অভিযানের আওতায় এনে ধ্বংস করুন। বাণিজ্য – খাদ্য -কৃষি মন্ত্রণালয়কে সমন্বয় আরও জোরদার করুন, বলিষ্ঠ করুন। বাজার ব্যবস্থাপনায় সরকারের নজরদারি আরও বৃদ্ধি করুন। অসত ব্যবসায়ীদের যাতে আমরা রেহাই না দেই। শেখ হাসিনার শুদ্ধি অভিযানের আওতায় এনে সকল সিন্ডিকেটকে ধ্বংস করে দিন।

সভায় আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম। উপস্থিত ছিলেন তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী, ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য আনিসুর রহমান মল্লিক, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন প্রমুখ।