কেমোথেরাপি চিকিৎসার পর রোগীদের বিশেষ পরামর্শ

বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৯

ক্যান্সারের আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থায় কেমোথেরাপি একটি বহুল ব্যবহৃত চিকিৎসা পদ্ধতি। কেমোথেরাপি এমন এক ধরণের চিকিৎসা যার মাধ্যমে ক্যান্সারের সেলগুলোকে ধ্বংস করা হয় এবং সেগুলোর বিস্তার থামানো হয়।

তবে সব ধরনের ক্যান্সারের জন্য এক ধরণের চিকিৎসা প্রযোজ্য নয়। বিভিন্ন ধরণের ক্যান্সার সেল বিভিন্ন ধরণের ঔষধে সাড়া দেয়। কেমোথেরাপির সর্বোচ্চ ভালো ফলাফলের জন্য আট ধরনের ঔষধের সমন্বয়ে ঘটানো হয়।

কেমোথেরাপির মাধ্যমে চিকিৎসা উন্নত করার জন্য চিকিৎসকরা নতুন ধরণের ঔষধের সমন্বয় ঘটানোর চেষ্টা করছেন। অধিকাংশ সময় কেমোথেরাপির কারণে শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে। কিন্তু আধুনিক কিছু কেমোথেরাপি সামান্য সমস্যা তৈরি করে।
রোগীর প্রতি বিশেষজ্ঞ পরামর্শ

এ বিষয়ে ডেল্টা মেডিকেল কলেজের অনকোলজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. কাজী মনজুর কাদের বলেছেন, ক্যান্সার কেমোথেরাপি চিকিৎসার পরে রোগী তার সব কাজ আগের মতই করতে পারবে। তার জীবন সুন্দরভাবে এবং স্বাভাবিকভাবে চালাতে পারবে।

কাজেই ক্যান্সার পরবর্তী উপসর্গ নিয়েও কোন চিন্তাভাবনার দরকার নেই। বরঞ্চ ঠিক সময়ে সঠিকভাবে সম্পূর্ণ চিকিৎসা নেয়ার জন্যই আমি বলবো।

ডক্টর টিভি ডটনেটের আয়োজনে স্বাস্থ্য বিষয়ক বিশেষ অনুষ্ঠানে ডা. কাজী মনজুর কাদের এসব পরামর্শ দেন।
তিনি বলেন, কেমোথেরাপির ভীতিকর অবস্থা যে চুল পড়া সেটা নিয়েও আর ভাববার বিষয় নয়। কারণ চুল হবেই চিকিৎসা শেষ হওয়ার পরে এবং আগের চেয়েও বেশি করে চুল হবে। এটাও আশ্বস্ত করা যায়।