কোন আন্দোলন হলেই বিএনপি-জামায়াত তকমা দেয়া হয় : ভিপি নুর

বুধবার, নভেম্বর ১৩, ২০১৯

ঢাকা : জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের অপসারণ দাবিতে মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) সন্ধ্যায় পুরাতন প্রশাসনিক ভবনের সামনে সংহতি সমাবেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের ভিপি নুরুল হক নুর দাবি করেন দেশে যখন কোন আন্দোলন হয় তখনই সেটাকে বিএনপি জামায়াতের তকমা দেয়া হয়।

অথচ দেখা যায় সেসব আন্দোলনে জনগণ সতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নেয়। আর এতেই প্রমাণিত হয় যে ঐ আন্দোলন কতটা যৌক্তিক। নূর আরও বলেন, ছাত্রলীগ শুধু জাহাঙ্গীনগরের শিক্ষার্থীদের উপরই হামলা চালাচ্ছে না। ছাত্রলীগের হামলা সারাদেশেই চলছে। কিন্তু শিক্ষা উপমন্ত্রী ছাত্রলীগের পক্ষে সাফাই গাচ্ছেন।

বর্তমানে রাষ্ট্রের কোন প্রতিষ্ঠানই স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছেনা বলে মন্তব্য করে নুর বলেন, বর্তমানে রাষ্ট্রের কোন প্রতিষ্ঠানই স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছে না। সকল ঘটনাতেই প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা তার প্রমাণ। আমরা দেখেছি ফেনীর নুসরাত হত্যা মামলায় প্রধানমন্ত্রী হস্তক্ষেপ লাগে।

তাহলে বিচার বিভাগের কাজ কি? বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলন হলে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চাওয়া হয়। তাহলে ইউজিসি, শিক্ষামন্ত্রণালয় কি করে? জাবি ভিসির উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন, দেশের ১৭টি বিশ্ববিদ্যালয় ভিসির বিরুদ্ধে দুর্নীতি-অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। নিজের বিরুদ্ধে আন্দোলন ঠেকাতে আপনি(জাবি ভিসি) বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করেছেন। আপনি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বসে তাদের দাবি শুনে ব্যবস্থা নিতে পারতেন। কিন্তু আপনি তা করেননি।

আপনার বিভিন্ন সময়ের বক্তব্যই প্রমাণ করে আপনি দুর্নীতিবাজ আন্দোলনকারীদের উদ্দেশ্য তিনি বলেন, এ আন্দোলন শুধু জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি পতনের আন্দোলন নয়। এটা অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলন। এই আন্দোলন ঠিকই ৯০-এর গণ অভ্যুত্থানে রুপ নেবে।