দুর্বল হচ্ছে ‘বুলবুল’, মধ্যরাতে আঘাত হানতে পারে!

শনিবার, নভেম্বর ৯, ২০১৯

ঢাকা: উপকূলের দিকে ধেয়ে আসা ঘূর্ণিঝড় বুলবুল শনিবার (৯ নভেম্বর) মধ্যরাতে সুন্দরবন এলাকায় আঘাত হানতে পারে। এরপর এটি প্রবল বৃষ্টি ঝড়িয়ে দুর্বল হয়ে পড়তে পারে বলে আবহাওয়া অধিদফতরের সর্বশেষ বুলেটিনে বলা হয়েছে। বর্তমানে ঘূর্ণিঝড়টির অবস্থান মোংলা বন্দর থেকে ২৪০ কিলোমিটির দক্ষিণ-পশ্চিমে রয়েছে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া অধিদফতরের উপ-পরিচালক আয়েশা খাতুন।

তিনি জানান, ভারত ও বাংলাদেশের সুন্দরবন সীমানা দিয়ে দুই দেশে প্রবেশ করবে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। বর্তমানে ঝড়টি তীরের দিকে এগিয়ে আসার গতিবেগ ঘণ্টায় ৮৫ থেকে ১০০ কিলোমিটার। মধ্যরাত নাগাদ এটি সমুদ্র তীরবর্তী এলাকায় আঘাত হানতে পারে। পরে এটি ধীরে ধীরে দুর্বল হয়ে যাবে।

আবহাওয়া অধিদফতরের উপ-পরিচালক জানান, শনিবার দুপুরের দিকে ঘূর্ণি ঝড়টির বাতাসের গতিবেগ ছিল ১৩০ থেকে ১৫০ কিলোমিটার। বিকেলে বৃষ্টি ঝড়িয়ে তা কমে গিয়েছে। বর্তমানে ঘণ্টায় ১১০ থেকে ১৩০ কিলোমিটার গতিবেগ রয়েছে। এভাবে গতিবেগ কমে ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৭০ কিলোমিটারে নেমে আসলে ঘূর্ণিঝড়টি দুর্বল হয়ে বাংলাদেশ অতিক্রম করবে।

এরআগে মন্ত্রণালয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান জানান, ঘূর্ণিঝড়টি মোংলা বন্দর থেকে ২৮০ কিলোমিটারের মধ্যে চলে এসেছে। এটি এখন ১৫/২০ কিলোমিটার গতিতে এগুচ্ছে। আঘাত হানার সময় ঝড়ের গতি গতি বেগ হতে পারে ১৪০ থেকে ১৫০ কিলোমিটার। তাতে ধারণা করা হচ্ছে রাত ৮টা থেকে মধ্যরাতের মধ্যে ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হানতে পারে।

বৈঠকে জানানো হয়, ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ১০ নম্বর সতর্কতার আওতায় রয়েছে।

এর আগে আবহাওয়া অধিদফতর ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর প্রভাবে প্রভাবে মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরসহ ৯ উপকূলীয় জেলায় ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত জারি করে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এই সতর্কতা মেনে চলার জন্য আহবান জানানো হয়। আবহাওয়া বুলেটিনে বলা হয় শনিবার রাত ৮টা নাগাদ এটি সুন্দরবনের পাশ দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ ও খুলনা উপকূলে আঘাত হানতে পরে।