স্ত্রীকে পুড়িয়ে ঘরে তালা দিয়ে রাখল স্বামী

মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৫, ২০১৯

ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়ায় যৌতুকের ৫০হাজার টাকার জন্য নাছিমা খাতুন নামে এক গৃহবধুকে গরম তেলে পুড়িয়ে ৭ দিন ঘরে তালা দিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে স্বামী আসাদুল মিয়ার বিরুদ্ধে। তাদের ঘরে আফিয়া (১) নামের কন্যা শিশু রয়েছে।

ঘটনাটি ঘটে গত মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) দুপুরে উপজেলার কুশমাইল ইউনিয়নের ধামর গ্রামে। পরে সোমবার (১৪ অক্টোবর) সকালে নাসিমার বাপের বাড়ীর লোকজন ঘরের তালা ভেঙ্গে গৃহবধূকে উদ্ধার করে ফুলবাড়ীয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

নাসিমা খাতুন জানান, বিয়ের সময় তার স্বামীকে দেড় লাখ টাকা যৌতুক দেয়া হয়। সম্প্রতি আরও ৫০ হাজার টাকা যৌতুকের জন্য বখাটে স্বামী আসাদুল মারপিট করতো।

গত মঙ্গলবার দুপুরে রান্না ঘরে রান্না করার সময় স্বামী স্ত্রীর মধ্যে যৌতুকের টাকার জন্য কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে রান্না করা গরম তেল ছিটিয়ে দিয়ে স্ত্রীর শরীর ঝলসে দেয়।

বিষয়টি যাতে জানা জানি না হয় সে জন্য তেলে ঝলসে যাওয়া গৃহবধূকে একটি ঘরে তালাবদ্ধ করে ৭ দিন আটক করে রাখে স্বামী আসাদুল, শ্বশুর তোতা মিয়া ও শ্বাশুড়ি রহিমা খাতুন।

পরে গত সোমবার সকালে নাসিমার বাপের বাড়ীর লোকজন তালাবদ্ধ ঘর থেকে গৃহবধূকে উদ্ধার করে ফুলবাড়ীয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

গৃহবধূর ভাই ইছাহাক আলী জানান, আমার বোনকে এর আগেও বিড়ির ছ্যাকা দিয়ে নির্যাতন করে তার স্বামী। আমার বোনকে গরম তেলে শরীর ঝলসে দেয়ার পর স্বামী শ্বাশুর শ্বাশুড়ি বিষয়টি জানা জানি হলে কোলের শিশু সন্তানকে হত্যার হুমকি দেয়।

নাওগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক জানান, গরম তেলে গৃহবধূর শরীর ঝলসে দেয়া হয়েছে। তার চোখের ডান পাশ মারাত্মক ভাবে ক্ষত হয়েছে।

ফুলবাড়িয়া থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার বলেন, এ বিষয়ে এখনো কোন অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ময়মনসিংহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আলামিন জানান, বিষয়টি আমার জানা নাই। তবে খোঁজ খবর নিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।