‘ইরান পাকিস্তানের ভ্রাতৃপ্রতীম প্রতিবেশী দেশ’

সোমবার, অক্টোবর ১৪, ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ইরান পাকিস্তানকে ভ্রাতৃপ্রতীম প্রতিবেশী দেশ বলে মনে করে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনি। ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনির সঙ্গে বৈঠক করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে সাক্ষাৎ ও যৌথ সংবাদ সম্মেলন শেষে ইমরান খান সর্বোচ্চ নেতার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যান। এর পরে সাংবাদিকদের একথা বলেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা।

তিনি বলেন, তেহরান ও ইসলামাবাদের মধ্যে হৃদ্যতাপূর্ণ ও গভীর সম্পর্ক বিরাজ করছে এবং এ সম্পর্ক আরো শক্তিশালী করতে হবে। তিনি দু’দেশের ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের কিছু উদাহরণ টেনে বলেন, ইরান পাকিস্তানকে ভ্রাতৃপ্রতীম প্রতিবেশী দেশ বলে মনে করে।

তিনি বলেন, তেহরান ও ইসলামাবাদের মধ্যে সম্পর্ক আরো শক্তিশালী করার বহু সুযোগ রয়েছে। দ্বিপক্ষীয় গ্যাস পাইপলাইন নির্মাণের অসমাপ্ত কাজ শেষ করার পাশাপাশি দুদেশের মধ্যকার শত শত কিলোমিটার সীমান্তের নিরাপত্তা আরো জোরদার করতে হবে।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি ও নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠার বিষয়ে যে স্পর্শকাতরতা দেখাচ্ছেন তার ভূয়সী প্রশংসা করে আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনি বলেন, এ অঞ্চলে যাতে কোনো সংঘাত না বাধে সেজন্য সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। তিনি মধ্যপ্রাচ্যের কোনো কোনো দেশের পক্ষ থেকে ইরাক ও সিরিয়ায় তৎপর সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোকে পৃষ্ঠপোষকতা দেয়া এবং ইয়েমেনের ওপর ভয়াবহ আগ্রাসনের ব্যাপারে দুঃখ প্রকাশ করেন।

ইয়েমেনে চলমান সৌদি আগ্রাসনের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ইরান বহু আগেই ইয়েমেন যুদ্ধ অবসানের জন্য চারদফা শান্তি পরিকল্পনা পেশ করেছে। তিনি বলেন, ইয়েমেন যুদ্ধ সঠিক উপায়ে শেষ হলে তা এ অঞ্চলের পরিস্থিতির ওপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেন, আমরা মধ্যপ্রাচ্যের কোনো দেশের সঙ্গে শত্রুতার সম্পর্ক চাই না কিন্তু এসব দেশের তো নিজস্ব কোনো স্বকীয়তা নেই। তারা আমেরিকার অঙ্গুলি হেলনে কাজ করে। এসব দেশ আমেরিকার ইচ্ছা বাস্তবায়ন করতে গিয়ে ইরানের সঙ্গে শত্রুতা পোষণ করে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

ইরান ইতিহাসে কখনো আগে যুদ্ধ শুরু করেনি উল্লেখ করে আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেন, অবশ্য কেউ যদি ইরানের বিরুদ্ধে আগে যুদ্ধ শুরু করে তাহলে তাকে অনুতপ্ত হতে হবে।