‘প্রধানমন্ত্রী কিছু আনতে পারেননি বরং ভারতকে দিয়ে এসেছেন’

বুধবার, অক্টোবর ৯, ২০১৯

ঢাকা: প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে চুক্তিসহ বর্তমান দেশ ও রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক করেছে বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটি। বৈঠকে বিষয়ে বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে দলের নয়াপল্টনস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তুলে ধরবে দলটি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সর্বশেষ ভারত সফরে যেসব চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছেন তা জনসম্মুখে প্রকাশের দাবি জানান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা।

বৈঠকে বিএনপি নেতারা মনে করেন, ‘প্রধানমন্ত্রী তার ভারত সফরে দেশের জন্য কিছু আনতে পারেননি। বরং সব সময় ভারতকে দিয়ে এসেছেন। সর্বশেষ ফেনী নদীর পানি দিয়ে এসেছেন ভারতকে। অথচ ফেনী নদীর পানি ভারত কোনোভাবে দাবি করতে পারে না। কারণ এটি আন্তর্জাতিক নদী নয়।’

গুলশানে চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে বুধবার (৯ অক্টোবর) এই বৈঠক শেষে বিএনপির স্থায়ী কমিটির এক সদস্য সাংবাদিকদরে কাছে এমন মন্তব্য করেন।

তারা বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে হত্যার অন্যতম অভিযুক্ত বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের নেতা অমিত সাহাকে গ্রেফতারের দাবিও জানান তারা।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে যেসব চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে তা নিয়ে তারা বিস্তারিত আলোচনা করেছেন। এ ছাড়া বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা পরবর্তী ছাত্র-ছাত্রীদের চলমান আন্দোলন, দুর্নীতি-অনিয়ম বিরোধী অভিযানসহ সমসাময়িক বিষয়ে নিয়েও তারা আলোচনা করেছেন। এসব বিষয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিএনপির অবস্থান অবহিত করা হবে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এক সদস্য বলেন, মুহুরি সেচ প্রকল্পের প্রায় ৭০ ভাগ পানির উৎস ফেনী নদী। ভারত ত্রিপুরাবাসীর পানির চাহিদা মেটাতে ফেনী নদীর পানি পরিশোধনের যে প্রকল্প করতে যাচ্ছে তাতে শুষ্ক মৌসুমে নদীতে চরম পানি সংকট দেখা দেবে। এমনিতেই পাম্প বসিয়ে পানি তুলে সেচকাজে ব্যবহার করছে ভারত। ফলে পানির অভাবে ফেনী নদী নাব্যতা হারালে দেশের ষষ্ঠ বৃহত্তম মুহুরি সেচ প্রকল্পের (এমআইপি) চট্টগ্রাম ও ফেনী জেলার লক্ষাধিক হেক্টর জমিতে ইরি সেচ প্রকল্প হুমকির মুখে পড়ার আশংকা রয়েছে।

বুধবার (৯ অক্টোবর) বিকেল সাড়ে ৫টায় বৈঠক শুরু হয়, যা চলে রাত ৮টা পর্যন্ত। মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে থাকাায় বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন স্থায়ী কমিটির জ্যেষ্ঠ সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

স্কাইপেতে বৈঠকে অংশ নেন লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

উপস্থিত ছিলেন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, ড. আব্দুল মঈন খান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও সেলিমা রহমান।