মিয়ানমারের ওপর বৈশ্বিক নিষেধাজ্ঞার আহ্বান ইপি’র

রবিবার, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মিয়ানমারের সেনা ও নিরাপত্তা বাহিনীর জন্য অস্ত্র ও সরঞ্জাম সরবরাহ, বিক্রি ও আদান-প্রদান, তাদের প্রশিক্ষণসহ বৈশ্বিকভাবে দেশটির ওপর সমন্বিত অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট (ইপি)।

গেল বৃহস্পতিবার ইউরোপীয় পার্লামেন্টে পাস হওয়া রোহিঙ্গা সংকট ও মিয়ানমারের মানবাধিকার পরিস্থিতির ওপর আনা এক প্রস্তাবে এ আহ্বান জানানো হয়।

প্রস্তাবটি ৫৪৬-১২ ভোটে পাস হয়। যেখানে ৯৪ জন আইনপ্রণেতা ভোট প্রদানে বিরত ছিলেন।

এছাড়াও প্রস্তাবে মিয়ানমারে স্বীকৃত ১৩৫টি বৈধ নৃ-গোষ্ঠীর মতো রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্বের স্বীকৃতি দিতে ও দেশটিতে গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ভ্রমণ ও সম্পদ জব্দসহ সুনির্দিষ্ট নিষেধাজ্ঞা আরোপের আহ্বান জানানো হয়েছে।

ইপিতে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর হাতে দেশটির সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর মানবাধিকার লঙ্ঘনের পূর্ববর্তী ও সাম্প্রতিক সব ঘটনার তীব্র নিন্দা জানানো হয়।

সেইসঙ্গে প্রস্তাবে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকার ও জনগণের প্রচেষ্টার প্রশংসা করে ইপি। রোহিঙ্গাদের ওপর থেকে ইন্টারনেট ব্যবহারের নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ারও আহবান জানানো হয়।

উল্লেখ্য, মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর হত্যা, নিপীড়ন, ধর্ষণ, জ্বালাও-পোড়াওয়ের মুখে ২০১৭ সালের ২৫ আগস্টের পর থেকে রাখাইন ছেড়ে নতুন করে সাড়ে ৭ লাখেরও বেশি বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা সীমান্ত ও সাগর পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। গত দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে দেশছাড়া বিশাল এই জনগোষ্ঠীকে আশ্রয় দিয়ে বৈশ্বিক দৃষ্টিতে মানবিকতার নতুন দৃষ্টান্ত স্থাপন করে বাংলাদেশ। কিন্তু রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরানোর ব্যাপারে সব প্রস্তুতি নিয়েও মিয়ানমারের অনাগ্রহের কারণে দ্বিতীয় দফায়ও প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া বন্ধ হয়ে যায়।