বাকেরগঞ্জে ৬ টি স্বর্নের দোকানে ডাকাতি, হামলায় আহত এএসআই

বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯

বরিশাল : বরিশালের বাকেরগঞ্জের কলসকাঠি গ্রামে ৬ টি স্বর্ণের দোকানে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। পাশপশি ডাকাতদলের হামলায় বাকেরগঞ্জ থানা পুলিশের এএসআই জসিম গুরুত্বর আহত হয়েছে।

তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাকেরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত (ওসি) আবুল কালাম। স্থানীয়রা জানান, বুধবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে বাকেরগঞ্জ থানাধীন কলসকাঠী বাজারে একদল ডাকাত হানা দেয়।

এরআগে তারা ২-৩ টি স্পীডবোটে করে তারা কলসকাঠী বাজারে আসে। শুরুতে তারা আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর (ডিবি পুলিশ) পরিচয় দিয়ে ব্যাংকের নাইট গার্ডসহ বাজারে থাকা লোকজনকে ধরে পেছন থেকে হাত বেধে দেয়। এরপর সবাইকে বাজারের সেবা ফার্মেসী নামক একটি ওষুধের দোকানে নিয়ে আটকে রাখে।

ঘটনার কাছাকাছি থাকা থানা পুলিশের একটি টহল দল বিষয়টি জানতে পেরে ঘটনাস্থলে যায় এবং ডাকাতদলের ৪/৫ সদস্যকে দেখে চ্যালেঞ্জ করে। এরমধ্যেই পুলিশ দলের নেতৃত্বে থাকা এএসআই জসিমের পেছন দিয়ে লোহার রড দিয়ে মাথার ওপর আঘাত করে ডাকাত দলের সদস্যরা।

এরপর তাকেওসহ অন্যদের হাত পেছন থেকে বেধে ওই ফার্মেসিতে নিয়ে আটকে রাখে। বাজারের ব্যবসায়ীরা জানান, ডাকাতদলের সদস্যরা বাজারের লক্ষী জুয়েলার্স, কলসকাঠী অলঙ্কার ভবন, কানাই কর্মকারের স্বর্নের দোকান, পাল অলঙ্কার ভবন, সোনার গহনা ভবনসহ ৬ টি স্বর্নের দোকানে লুটপাট চালায়। ব্যবসায়ীদের দাবী এ লুটপাটে ৬০ ভরির ওপরে স্বর্ণ, ১ শত ভরির ওপরে রুপা ও নগদ কয়েকলাখ টাকা লুট করে নিয়ে গেছে ‍দুর্বৃত্তরা।

জানিয়েছেন বাকেরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত (ওসি) আবুল কালাম জানান, খবর পেয়ে থানা পুলিশের অন্য সদস্যরা ঘটনাস্থলে আসলেও তার আগে ডাকাত দলের সদস্যরা পালিয়ে যায়। আহত পুলিশ সদস্যকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে ও পরে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

কিন্তু তার অবস্থা সংকটাপন্য হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এদিকে ডাকাত দলের সদস্যদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ওই এলাকার মোতায়েন করা হয়েছে বাড়তি পুলিশ।