পাখির বিষ্ঠায় ষাটেরও অধিক রোগ-জীবাণু!

শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৯

অনলাইন ডেস্ক: নানা রকমের মানুষেরও শখও নানা রকম। অনেকেই শখের বসে পাখি পুষে থাকেন। অনেকেই আবার শুধু শখ নয়, বাণিজ্যিকভাবেও নানা জাতের পাখি পালন করছেন। কিন্তু অনেকেই জানেন না যে পাখির বিষ্ঠায় ষাটেরও অধিক রোগ-জীবাণু থাকে!

ভারতের কর্নাটক ভেটেরিনারি,অ্যানিম্যাল অ্যান্ড ফিসারিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের মতে, পাখির বিষ্ঠা থেকে নানা রকমের রোগ-জীবাণুর সংক্রমণ হতে পারে। পাখির বিষ্ঠা থেকে শ্বাস কষ্ট, বুকে ব্যথা, কাশি, জ্বর, নিউমোনিয়া, মাথাব্যথা, ত্বকের সমস্যা, ডায়রিয়া, মেনিনজাইটিসসহ নানা রোগ হতে পারে। এছাড়া পাখির বিষ্ঠা থেকে ফুসফুসে সংক্রমণের ফলে ‘হিসটোপ্লাসমোসিস’ নামক প্রদাহজনিত সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে।

স্কটিশ স্বাস্থ্য সচিব জিন ফ্রিম্যান জানান, পাখির বা বিশেষ করে কবুতরের বিষ্ঠা থেকে মারাত্মক সব রোগ-জীবাণু ছড়াতে পারে। কবুতরের বিষ্ঠা থেকে ক্যান্ডিডায়সিস নামের মারাত্মক ছত্রাকের সংক্রমণও হতে পারে।

সতর্কতা: বাড়িতে পাখির বিশেষ করে কবুতরের বিষ্ঠা জমে গেলে তা অবশ্যেই পরিষ্কার করুন। পরিষ্কারের পর জায়গাটি পানি দিয়ে ভাল করে ধুয়ে ফেলুন। এরপর ফিনাইল দিয়ে জায়গাটি মুছে ফেলুন। কবুতরের বিষ্ঠা পরিষ্কারের সময় অবশ্যই নাক-মুখ ঢেকে নিন। আর বাড়িতে যদি শিশু ও বয়স্ক কেউ থাকে তাহলে পাখি না পোষাই ভাল।