‘জনগণ আজ অসহায়, জনগণ আজ মুক্তি চায়’

বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯

ঢাকা : সর্বক্ষেত্রে বর্তমান ক্ষমতালিপ্সু সরকারের যে স্বৈরাচারি আগ্রাসন, যে জুলুম-নিপীড়ন, দুর্নীতি-অনিয়ম আর ব্যর্থতা তা থেকে দেশের অসহায় শোষিত জনগণ আজ মুক্তি চায় বলে মন্তব্য করেছেন টাঙ্গাইল জেলা বিএনপির সভাপতি কৃষিবিদ সামসুল আলম তোফা।

তিনি বলেন, ‘সরকার প্রতিটি ক্ষেত্রে লুটতরাজ চালাচ্ছে। দেশে আজ ন্যায় বিচার তিরহিত। চারদিকে শুধু ধর্ষণ-গুম-খুনের মহোৎসব। এই জালিম সরকারের পতন ছাড়া দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি তথা জনগণের মুক্তি সম্ভব নয়। তাই সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আগে এই ভোটারবিহীন একগুয়ে সরকারের পতন নিশ্চিত করতে হবে।

দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে সারা দেশে পূর্বঘোষিত দু’দিনের কর্মসূচির অংশ হিসেবে টাঙ্গাইলে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) জেলা বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে বৃষ্টি উপেক্ষা করে সকাল থেকেই দলে দলে নেতাকর্মীরা জড়ো হতে থাকেন। দুপুরের আগেই শহরের নিরালা মোড় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ জনসমুদ্রে পরিণত হয়।

এসময় জেলা বিএনপির সভাপতি কৃষিবিদ সামসুল আলম তোফা সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, ‘দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব আজ বিপন্ন। সারা দেশে লুটপাট, হত্যা, ধর্ষণসহ অরাজক পরিস্থিতি বিরাজ করছে। মানুষের ন্যূনতম নিরাপত্তাও আজ আর অবশিষ্ট নেই। জনগণ এই অবস্থার পরিবর্তন চায়। দেশবাসী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আশু মুক্তি চায়।’

তিনি ভারতের আসাম এবং রোহিঙ্গা শরণার্থী সমস্যা প্রসঙ্গে বলেন, ‘দেশে অনির্বাচিত ও তাঁবেদারি সরকার থাকার জন্যই এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। বিএনপি সরকারে থাকাকালীনও ১৯৭৮ ও ১৯৯২ সালে রোহিঙ্গা সমস্যার সৃষ্টি হয়েছিল। তখন বিএনপির শক্তিশালী পররাষ্ট্রনীতি ও রাজনৈতিক দূরদর্শিতায় পুনরায় রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছিলো। কিন্তু বর্তমান মিডনাইট সরকার রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে পুরোপুরিভাবে ব্যর্থ।’

ক্ষমতাসীন সরকারের দুর্নীতি-অনিয়মের কথা তুলে ধরে তোফা বলেন, ‘এ সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত না। মিডনাইট ভোট, যা প্রশাসনের মাধ্যমে হয়েছির। যার জন্য দেশের প্রতিটি সেক্টর দুনীর্তিতে নিমজ্জিত। কোনও প্রকার জবাবদিহিতা নেই। বিচার বিভাগকেও দলীয়করণ করা হয়েছে। জনগণ আজ অসহায়, জনগণ আজ মুক্তি চায়। একমাত্র বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির মাধ্যমেই দেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারসহ সকল সমস্যার সমাধান সম্ভব।’

তিনি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনে দলীয় নেতাকর্মীসহ টাঙ্গাইলবাসীকে সক্রিয় অংশগ্রহণের আহ্বান জানিয়ে কর্মসূচি সমাপ্ত ঘোষণা করেন।

সামসুল আলম তোফার সভাপতিত্বে মানববন্ধন কর্মসূচিতে আরও বক্তব্য রাখেন- জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ফরহাদ ইকবাল, সহ-সভাপতি সাদেকুল আলম খোকা, আতাউর রহমান জিন্নাহ্, যুগ্ম সম্পাদক আবুল কাসেম, সাংগঠনিক সম্পাদক আঃ হামিদ তালুকদার, সাংগঠনিক ও যুবদল আহ্বায়ক আশরাফ পাহেলী, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহীন আকন্দ, সদর উপজেলা বিএনপির আসগর আলী, জেলা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মমতাজ করিম, তাঁতীদলের সভাপতি শাহ আলম প্রমুখ।

জেলা বিএনপির প্রচার ও শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক এ কে এম মনিরুল হক ভিপি মুনীরের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন- জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি জিয়াউল হক শাহীন, শুকুর মাহমুদ, দফতর সম্পাদক মির্জা শাহীন, বিএনপি নেতা দিপু হায়দার, সৈয়দ শাহীন, জেলা যুবদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক মাহমুদ হাসান টিটন, ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সালেহ মো. শাফী ইথেন, মহিলা দলের সভানেত্রী নিলুফার ইয়াসমিন, শ্রমিক দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবু সাঈদ, জাসাসের সভাপতি বজলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক বাবু পাভেলসহ বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, শ্রমিক দল, মহিলা দলের অসংখ্য নেতাকর্মী।